kalerkantho


মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার জন্য চলচ্চিত্র নির্মাতাদের প্রতি আহবান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ এপ্রিল, ২০১৬ ২১:১৫



মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার জন্য চলচ্চিত্র নির্মাতাদের প্রতি আহবান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে মহান স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার জন্য চলচ্চিত্র নির্মাতাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
তিনি আশা প্রকাশ করেন, নির্মাতারা ‘কুসংস্কার ও ধর্মান্ধতামুক্ত, অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণে এগিয়ে আসবেন এবং বৈশ্বিক পরিম-লে বাংলা চলচ্চিত্রের প্রসার ঘটিয়ে দেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করবেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস উপলক্ষে আজ এক বাণীতে এ আহবান জানান। আগামীকাল ‘জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস’। এ উপলক্ষে তিনি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট শিল্পী, কলাকুশলীসহ সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।
শেখ হাসিনা বলেন, চলচ্চিত্র হচ্ছে একটি অত্যন্ত শক্তিশালী গণমাধ্যম। মানুষের চেতনাকে শাণিত করে সমাজ উন্নয়নে চলচ্চিত্র এক অনন্য মাধ্যম হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চলচ্চিত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে ১৯৫৭ সালের ৩ এপ্রিল শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী হিসেবে তৎকালীন প্রাদেশিক পরিষদে চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন বিল উত্থাপন করেন।
এরই ধারাবাহিকতায় চলচ্চিত্র নির্মাণের প্রাণকেন্দ্র এফডিসি প্রতিষ্ঠিত হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের জন্য ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ এই দিনটিকে আমরা জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস ঘোষণা করেছি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়ন ও উৎকর্ষ সাধনের লক্ষ্যে তার সরকার বহুমাত্রিক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। চলচ্চিত্রকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা, চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশকগণ কর রেয়াতসহ নানাবিধ সুযোগ সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। সুস্থধারার চলচ্চিত্র নির্মাণ উৎসাহিত করতে অনুদানের পরিমাণ বৃদ্ধি এবং শিশুতোষ চলচ্চিত্র নির্মাণে অনুদান দেয়া সহ জাতীয় চলচ্চিত্র নীতিমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা চলচ্চিত্র শিল্পে মেধাবী ও দক্ষ কর্মী তৈরির লক্ষ্যে ফিল্ম ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছি। ডিজিটাল প্রযুক্তির চলচ্চিত্র নির্মাণে বিএফডিসি’র আধুনিকায়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় বিশ্বমানের চলচ্চিত্র নির্মাণ যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করা হয়েছে। চলচ্চিত্র প্রদর্শন ব্যবস্থা ডিজিটালাইজড্ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। ’
তিনি আরো বলেন, চলচ্চিত্র নির্মাতাগণের সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গাজীপুর জেলার কবিরপুরে বিশ্বমানের একটি চলচ্চিত্র নগরী এবং পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। অসচ্ছল শিল্পী ও কলাকুশলীদের আর্থিক সাহায্য সহযোগিতা প্রদানের পাশাপাশি তাদের চিকিৎসার ব্যয়ভার তার সরকার বহন করছে।
প্রধানমন্ত্রী ‘জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস ২০১৬’ উদ্যাপনের সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।


মন্তব্য