kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

শ্বাসরোধ করেই তনুকে হত্যা, তবে ধর্ষণ 'অনিশ্চিত'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৯ মার্চ, ২০১৬ ২২:১৪



শ্বাসরোধ করেই তনুকে হত্যা, তবে ধর্ষণ 'অনিশ্চিত'

বাংলাদেশে কুমিল্লার পুলিশ বলছে, শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে তারা এখন ধারণা করছে। তবে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা, সে ব্যাপারে পুলিশ এখনও নিশ্চিত হতে পারেনি।

এমন প্রেক্ষাপটে আবারও ময়নাতদন্তের জন্য আগামীকাল তনুর মৃতদেহ কবর থেকে তোলা হবে। এ ঘটনা নিয়ে ঢাকা এবং কুমিল্লাসহ বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে।

আজ এসব বিক্ষোভ থেকে কুমিল্লার সেনানিবাস এলাকায় তনুর মৃতদেহ উদ্ধারের নয়দিন পরও জড়িত কাউকে চিহ্নিত করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে।

শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনুর মৃতদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্ত এবং ভিসেরা পরীক্ষা করা হয়। এগুলোর প্রতিবেদন এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে পুলিশ বলছে।

কিন্তু পুলিশ আবারও মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে। সেজন্য কুমিল্লার আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। আদালতের অনুমতি নিয়ে এখন আগামীকাল সোহাগী জাহান তনুর মৃতদেহ কবর থেকে তোলা হবে। তাঁর মৃতদেহ তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগরে দাফন করা হয়েছে।

আবারও ময়নাতদন্ত করার কারণ সম্পর্কে কুমিল্লা জেলার পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন বলেছেন, এ পর্যন্ত তদন্তে যা উঠে এসেছে, তাতে তাদের আরও কিছু বিষয়ে তথ্য প্রয়োজন।

তিনি বলছিলেন, “এই ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করতে কোন তথ্য প্রমাণই যেনো বাদ না যায়। সেজন্য ময়নাতদন্তে পারসিয়াল আরও কিছু বিষয় জানা দরকার। ”

কুমিল্লা সেনানিবাসে সোহাগী জাহান তনুর বাড়ির কয়েকশ গজের মধ্যে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল গত ২০শে মার্চ। ঘটনার নয়দিন পরও পুলিশ জড়িত কাউকে চিহ্নিত করতে পারেনি।

তবে কুমিল্লার পুলিশ সুপার শাহ আবির হোসেন বলেছেন, তদন্তের এ পর্যায়ে তারা তনু শ্বাসরোধ করে হত্যার বিষয়ে তথ্য প্রমাণ পেয়েছেন। হত্যার আগে ধর্ষণের অভিযোগের ব্যাপারে তারা এখনও কোনো ধারণা পাচ্ছেন না। সেটা নিশ্চিত হতে আবারও ময়নাতদন্ত করা হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সোহাগী জাহান তনুর পিতা ইয়ার হোসেনসহ পরিবারের সদস্যদের গতকাল পর্যন্ত পুলিশ কয়েকদফা জিজ্ঞিসাবাদ করেছে। কিন্তু তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে তারা কিছুই জানতে পারেননি। ইয়ার হোসেন বলেছেন, তদন্তে বিলম্ব হওয়ায় তাদের মধ্যে হতাশা তৈরি হচ্ছে। তিনি তাঁর মেয়ের হত্যার দ্রুত তদন্ত এবং বিচার চান।

“নয়দিন হলো, কিন্তু তদন্তের কিছুই এখনও জানতে পারলাম না। ”

ঢাকা এবং কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ থেকেও ঘটনাটির তদন্তে ধীর গতির অভিযোগ তোলা হয়েছে। এই অভিযোগে দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সহ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কয়েকশ শিক্ষার্থী ঢাকার শাহবাগ এলাকায় সড়ক অবরোধ করেছিল।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনু নাটকসহ সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন। তাঁকে হত্যার প্রতিবাদে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটও ঢাকায় বিক্ষোভ করেছে।

এই জোটের অন্যতম একজন নেতা নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু বলেছেন, তদন্তে ধীরগতির কারণে ক্ষোভ বাড়ছে।

এদিকে, ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব গোয়েন্দা পুলিশের কাছ থেকে পুলিশের তদন্ত বিভাগ সিআইডিকে দেয়া হয়েছে। সিআইডি পুলিশের একটি দল ইতিমধ্যে কুমিল্লা গেছে।


মন্তব্য