kalerkantho


কয়লাভিত্তিক ১৩২০ মেগাওয়াট পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুক্তি মঙ্গলবার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ মার্চ, ২০১৬ ২৩:১২



কয়লাভিত্তিক ১৩২০ মেগাওয়াট পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুক্তি মঙ্গলবার

সরকার আগামীকাল পটুয়াখালীতে কয়লাভিত্তিক ১৩২০ মেগাওয়াট পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য প্রকৌশল, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও নির্মাণ (ইপিসি) বিষয়ক চুক্তিতে স্বাক্ষর করবে ।
পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মাদ হোসেন আজ এখানে বাসসকে জানান, ২০১৯ সাল থেকে পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে।


তিনি বলেন, বাংলাদেশ-চীন পাওয়ার কোম্পানি (প্রা.) লিমিটেডের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে চীনা পাওয়ার কোম্পানি এবং রাষ্ট্রায়ত্ত নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড এই ইপিসি চুক্তিতে স্বাক্ষর করবে।
মোহাম্মাদ হোসেন বলেন, বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ১৪,৫০০ মেগাওয়াটে পৌঁছেছে, তার মধ্যে ৭৬ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সেবা পাচ্ছে। বর্তমান সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে ধারাবাহিকভাবে আরো কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের।
সূত্র জানায়, একটি যৌথ উদ্যোগে চীনা এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র পটুয়াখালীতে স্থাপন করা হবে।
প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী (বীর বিক্রম) এবং মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।
এর আগে, গত বছরের ১৯ মার্চ প্রায় দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে পায়রা সমুদ্রবন্দরের কাছাকাছি রাবনাবাদ নদীর তীরে এই প্লান্ট স্থাপনের জন্য নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড এবং চীনা পাওয়ার কোম্পানির মধ্যে এক স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।
সূত্র জানায়, সরকার সারাদেশে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের সংখ্যা বৃদ্ধি করে ২০৩০ সালের মধ্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ৩৪,০০০ মেগাওয়াটে নিয়ে যেতে পাওয়ার সিস্টেম মাস্টার প্ল্যান (২০১০-২০৩০) গ্রহণ করেছে।
তিনি বলেন, এই কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কয়লা আমদানির জন্য বাংলাদেশ ইন্দোনেশিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আলোচনা করেছে।


মন্তব্য