kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


এখন নির্বাচন নিয়ে খেলা চলছে : মির্জা ফখরুল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ মার্চ, ২০১৬ ২১:৪৯



এখন নির্বাচন নিয়ে খেলা চলছে : মির্জা ফখরুল

আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনগুলোকে ‘প্রহসনের নির্বাচন’ হিসেবে আখ্যা দিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এখন নির্বাচন নিয়ে খেলা চলছে। আজ শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

 

২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সেই নির্বাচনে একটি নাটক হয়েছে, প্রহসন হয়েছে। ১৫৪ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। সেই পার্লামেন্ট, সেই প্রধানমন্ত্রী কী জনগণের দ্বারা নির্বাচিত? এই পার্লামেন্টে যে আইন পাস হচ্ছে তা কী জনগণের কোনো কাজে আসবে?

নির্বাচন কমিশনের তীব্র সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে যে নির্বাচন কমিশন আছে তাদের একমাত্র কাজ হচ্ছে, সরকারের লোকেরা যা বলছে তার অনুমোদন দেওয়া।

তিনি বলেন, প্রহসনের নির্বাচনের আগে ইসি বললেন, 'প্রশাসনের কাছ থেকে সহযোগিতা পাচ্ছেন না। তারপরে নির্বাচনে ২২ জন লোকের প্রাণহানি হলো। জনগণের ভোট কেড়ে নেওয়া হল। অথচ ইসি নির্লজ্জভাবে বললেন নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। '

জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ভিশন ২০৩০ এর যে প্রস্তাব দিয়েছেন তার পরিপ্রেক্ষিতে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে আসুন জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলি। জনগণের অধিকারগুলো ফিরিয়ে দিতে হবে। সত্যিকার অর্থে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ফিরিয়ে দিতে হবে।

তিনি অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধে জিয়ার অবদান অস্বীকার করে প্রকৃতপক্ষে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ‘বিকৃতি’ করছে।
তিনি আরো বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান জীবন বাজি রেখে স্বাধীনতার যুদ্ধ ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার তাকে অস্বীকার করছে। তাতে কিছু আসে যায় না। ইতিহাস তাকে ধারণ করেছে। এ দেশের মানুষের হৃদয়ে গেঁথে গেছে তার নাম।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়ার কথা ছিল তৎকালীন রাজনৈতিক নেতাদের। তারা ঘোষণা না দিয়ে পালিয়ে গেলেন। তখন জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিলেন। এ সত্য কথা বলায় শফিউল্লাহকে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাসিত করা হয়েছে। তবে সত্য ধ্রুব তারার মতো সত্য। সত্যকে কখনও আড়াল করা যায় না।

দেশের সার্বিক অবস্থা প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ৪৫ বছর পরে দেশ ভয়াবহ অবস্থার মধ্যে পড়েছে। দেশের মানুষ তাদের জীবন নিয়ে শঙ্কিত। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে মানুষ যেমন ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন, তেমনি এখন মানুষ পালিয়ে বেড়াচ্ছে। অথচ গণতন্ত্র নিয়ে খেলা হচ্ছে। মানুষকে ভুল বুঝিয়ে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

এ ছাড়াও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনু হত্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তনুকে নিরাপদ জায়গায় নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এ জন্য নারী নেত্রীদের জেগে উঠতে হবে।

আলোচনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।


মন্তব্য