kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ । ৬ মাঘ ১৪২৩। ২০ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ব্যান্ডউইথ-বিদ্যুৎ বিনিময় ঐতিহাসিক ঘটনা : মোদি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ১৩:১৭



ব্যান্ডউইথ-বিদ্যুৎ বিনিময় ঐতিহাসিক ঘটনা : মোদি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ ও ভারত থেকে বিদ্যুৎ বিনিময় চুক্তি ঐতিহাসিক ঘটনা। আধুনিক বিজ্ঞানের কারণে বিদ্যুৎ ও ব্যান্ডউইথ বিনিময় চুক্তির শুভ উদ্বোধনী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে করা সম্ভব হয়েছে। এটা দুই দেশের জন্য ঐতিহাসিক ঘটনা, এতে আমরা আনন্দিত। আজ বুধবার সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ সব কথা বলেন।

এ সময় ত্রিপুরা-কু‌মিল্লা আন্তঃ‌দেশীয় বিদ্যুতের গ্রিড সংযোগ ও বাংলাদেশ-ত্রিপুরা ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ রফতানি কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। মোদি বলেন, আজকে দুই দেশের বিদ্যুৎ ও ব্যান্ডউইথ বিনিময় সারা বিশ্ব দেখবে। এতে দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও মজবুত হবে। দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ধরনের অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেছেন, আমার দৃষ্টিতে এটা ঐতিহাসিক ঘটনা।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অটুট ছিল। ওই সময়ে ভারতের ভূমিকা ও অবদানের বিষয়টি এখনও স্মরণ রাখার এ জন্য আপনাকে (শেখ হাসিনা) ধন্যবাদ। বাংলাদেশের দুঃখ-দুর্দশায় ভারত পাশে ছিল। বর্তমানে বাংলাদেশ যে উচ্চতায় যাচ্ছে ভারত কাঁধে-কাঁধ মিলিয়ে চলছে। দুই দেশের একসঙ্গে চলা পুরো দুনিয়ায় ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। আগামী ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষেও সমস্ত ভারতবাসীর পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, এ ঘটনায় আমাদের মধ্যে এমন একটি গেটওয়ে খুলছে, যা আমাদের আরও সামনে অগ্রসর হতে সহায়তা করবে। বাংলাদেশের সঙ্গে ডিজিটাল বিশ্বের এ গেটওয়ে খুলছে। তিনি বলেন, আসাম ও ত্রিপুরাসহ এ অঞ্চলের জন্য যে ট্রান্সমিশন লাইন স্থাপন করা হয়েছে তার ধারণক্ষমতা আমরা প্রথম থেকেই বেশি রেখেছি। আসছে দিনগুলোয় প্রয়োজন হলে আমরা আরও বেশি বিদ্যুৎ রফতানি করতে পারব।

তিনি আরও বলেন, মহাকাশেও ভারত বাংলাদেশের সঙ্গে থাকতে চায়। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাই উৎক্ষেপনেও ভারত বাংলাদেশের পাশে থাকবে। সড়ক, পানি ও ডিজিটাল দুনিয়ায় প্রবেশের ক্ষেত্রে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যে সম্পর্ক রয়েছে ঠিক সে সম্পর্ক মহাকাশেও থাকবে।

 


মন্তব্য