kalerkantho


গণতন্ত্রের সাফল্য কামনা বিদেশি ডেলিগেটদের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মার্চ, ২০১৬ ১২:৫৬



গণতন্ত্রের সাফল্য কামনা বিদেশি ডেলিগেটদের

আগামী দিনগুলোতে বিএনপির রাজনীতির মাধ্যমে বাংলাদেশের গণতন্ত্র নতুন উচ্চতায় সাফল্যের দিকে অগ্রসর হবে বলে মত দিয়েছেন কাউন্সিলে আগত বিদেশি ডেলিগেটরা। তারা বলেছেন, বিএনপির অভ্যন্তরে গণতন্ত্র চর্চা আরও বৃদ্ধি পাক এবং সামগ্রিকভাবে বাংলাদেশের গণতন্ত্র সাফল্যমণ্ডিত হোক। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার পর রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ মিলনায়তনে বক্তব্য রাখেন বিদেশি ডেলিগেটরা। বক্তব্য দেন- যুক্তরাজ্যের লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির সংসদ সদস্য সাইমন ড্যান্সজুক, বিল বেনিয়ান ও যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের কাউন্সিলর জোসেফ এ মোরি।

তারা প্রত্যেকেই আশা প্রকাশ করেন, সামনের দিনগুলোতে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা আগের চেয়ে আরও শক্তিশালী হবে। পাশাপাশি মানবাধিকার বিষয়ে উন্নতি সাধন করবে বাংলাদেশ। এরপর জোটের শীর্ষ নেতারা একে একে বক্তব্য রাখেন। তার আগে গত কাউন্সিলের পর থেকে মৃত্যুবরণকারী দলীয় নেতাকর্মীদের স্মরণে শোক প্রস্তাব উত্থাপনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম। প্রথমে দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। পতাকা উত্তোলনের সময় জাতীয় সংগীত এবং পরে দলীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়।

সকাল ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে কাউন্সিলের ভেন্যুতে উপস্থিত হন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ সময় হাজার হাজার নেতাকর্মী স্লোগান দিয়ে স্বাগত জানান তাদের নেত্রীকে। কাউন্সিলকে ঘিরে সকাল থেকেই রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট অব বাংলাদেশ মিলনায়তন এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পূর্ব-উত্তর অংশে নেতাকর্মীরা সকাল থেকে জমায়েত হন। বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিএনপি নেতাকর্মীরা মিছিল সহকারে এখানে আসছেন। ৩১০০ কাউন্সিলর, প্রায় ১০ হাজার ডেলিগেট, আমন্ত্রিত অতিথি, বিদেশি মেহমান ও দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী মিলে প্রায় ৩০/৩৫ হাজার মানুষের অংশগ্রহণে এবারের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

 


মন্তব্য