kalerkantho

26th march banner

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক বাংলাদেশের স্থানীয় ব্যাংকগুলো

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ মার্চ, ২০১৬ ২২:২৯



নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক বাংলাদেশের স্থানীয় ব্যাংকগুলো

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে সাইবার অ্যাটাকের মাধ্যমে প্রায় আটশ কোটি টাকা চুরির ঘটনার পর নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের স্থানীয় ব্যাংকগুলোও।

আর সে কারণেই ব্যাংকের গোপন বিষয়গুলো যারা দেখভাল করেন তাদের সার্বক্ষণিক নজরদারির আওতায় আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ব্যাংক এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার।

তিনি বলেন, “গোপন বিষয়গুলো অর্থাৎ ট্রেজারির মতো বিষয়গুলো যারা দেখভাল করছেন তাদের পাসপোর্টের তথ্য, কাজ করার সময় ভিডিও ফুটেজ রাখা সহ প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। ”

বাংলাদেশে সরকারি, বেসরকারি, বিদেশী ও বিশেষায়িত সব মিলিয়ে ব্যাংক রয়েছে ৫০টির বেশি। এদেশে অনেকদিন ধরেই চালু হয়েছে অনলাইন ব্যাংকিং।

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের সহযোগী অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান বলছেন বাংলাদেশের ব্যাংকিং সেক্টর অনলাইনে এসেছে পনের বছর হয়ে গেছে। এর মধ্যে আইটি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অনেক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে কিন্তু এটি প্রতিনিয়ত উন্নত করা ও মনিটরিয়েংর কোন বিকল্প নেই।

বেসরকারি ব্যাংক এশিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: মেহমুদ হোসেন বলছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ঘটনার পর এসব বিষয়কে বিবেচনায় নিয়েই নিরাপত্তার দিকটি নতুন করে পর্যালোচনা করার কাজ শুরু করেছেন তারা।

বেসরকারি মেঘনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নূরুল আমিন বলছেন পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে তারা এখন অনেক বেশি সতর্ক। তাই অনলাইন ব্যাংকিং বা লেনদেনে তিন ধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, “সন্দেহজনক কোন নির্দেশনা আসলে সরাসরি থানায় ও আমাদের কাছে ম্যাসেজ চলে আসবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে। ”

তবে একই সাথে ব্যাংক কর্মকর্তারা বলছেন নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোর উদ্যোগের পাশাপাশি গ্রাহকদেরও লেনদেনের ক্ষেত্রে সতর্ক হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।


মন্তব্য