kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


'ইউনিয়ন পর্যায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কার্যক্রম সম্প্রসারিত করা হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ মার্চ, ২০১৬ ২৩:৩০



'ইউনিয়ন পর্যায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কার্যক্রম সম্প্রসারিত করা হবে'

বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস ’১৬ উপলক্ষে রাজধানীতে আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা পশু-প্রাণীর খাদ্যের সাথে এন্টিবায়োটিক না মেশানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।
তারা বলেছেন, যেসব পশু-প্রাণীকে খাদ্যে এন্টিবায়োটিকযুক্ত খাবার খাওয়ানো হয়, সেসব পশুর দেহে এন্টিবায়োটিকের প্রভাব ক্ষীন হলেও থেকে যায় এবং মানুষ যদি ওই সব পশুর মাংস খায় তাহলে দীর্ঘমেয়াদে এর প্রভাব মানুষের শরীরে নানা প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করতে পারে এমনকি ক্ষেত্র বিশেষে মানুষের মৃত্যুও ঘটতে পারে।


আজ মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) মিলনায়তনে ‘এন্টিবায়োটিকযুক্ত খাদ্যকে না বলুন’ শীর্ষক এক সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন।
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও কনজুমারস্ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ’র (ক্যাব) যৌখ উদ্যোগে আয়োজিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।
বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। ইতোমধ্যেই জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।
দেশের প্রতিটি বিভাগসহ ৬১টি জেলায় এ অধিদপ্তরের অফিস রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভবিষ্যতে ইউনিয়ন পর্যায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কার্যক্রম সম্প্রসারিত করা হবে।
এ সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা’র (এফএও) আবাসিক প্রতিনিধি মাইক রোবসন ও ভারতের ভোক্তা অধিকার আইন বিশেষজ্ঞ অমৃতলাল সাহা।
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আবুল হোসেন এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন।
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ও ফার্মেসি অনুষদের সাবেক ডীন আ ব ম ফারুক।
মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক সাহাবুদ্দিন কবির চৌধুরী ও ক্যাব সভাপতি গোলামুর রহমান।
এ ছাড়াও বিভিন্ন সরকারি সংস্থা এবং বেসরকারি সংগঠনের প্রতিনিধিরা এ সেমিনারে মুক্ত আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন।


মন্তব্য