kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ । ৪ মাঘ ১৪২৩। ১৮ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

অর্থ লোপাট : বাংলাদেশ ব্যাংকে রদবদলের ইঙ্গিত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ২০:১১



অর্থ লোপাট : বাংলাদেশ ব্যাংকে রদবদলের ইঙ্গিত

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে রাখা প্রায় ১০ কোটি ডলার চুরি হওয়া নিয়ে অব্যাহত তোলপাড়ের মধ্যে বাংলাদেশে ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদে রদবদলের ইঙ্গিত দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী এএমএ মুহিত।

সোমবার তার কার্যালয়ে এই কেলেঙ্কারি নিয়ে একদল সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় অর্থমন্ত্রী এই ইঙ্গিত দেন।

বাংলাদেশের ব্যাংকে পরিচালনায় কোনো পরিবর্তন আসবে কিনা - একজন সাংবাদিকের এই প্রশ্নে মন্ত্রী জবাব দেন "হ্যাঁ"।

সেই সাথে তিনি বলেন, শীঘ্রই তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের সাথে কথা বলবেন।

আগামীকাল (মঙ্গলবার) অর্থমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন।

ওদিকে, গভর্নর আতিউর রহমান আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল বা আইএমএফের এক সভা শেষে করে তিনদিন পর আজ (সোমবার) বিকেলের দিকে ঢাকা ফিরেছেন।

তার একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, আগামীকাল (মঙ্গলবার) ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের জরুরী সভা ডেকেছেন গভর্নর।
ক্ষুব্ধ অর্থমন্ত্রী

ফেডারেল রিজার্ভ থেকে এত টাকা চুরি যাওয়ার ঘটনা প্রায় মাসখানেক তাকে এবং অর্থ মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়নি -- এই অভিযোগ তুলে গত দুদিন ধরে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করছেন অর্থমন্ত্রী মুহিত।

আজ (সোমবার) মন্ত্রীসভার বৈঠকে তিনি এই প্রসঙ্গ তোলেন।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বিবিসিকে জানিয়েছেন, এই কেলেঙ্কারি নিয়ে মন্ত্রীসভায় আজ কথা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা "আইন ও বিধি অনুযায়ী" ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

পরপরই একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, "এরকম চুরির ঘটনা ঘটতেই পারে, কিন্তু ঘটনার কথা কেউ ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ কাজ করছে। "
"ড: ইউনুসের চেলা"

ওদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য নুহ আলম লেনিন গভর্নর আতিউর রহমানের অপসারণ চেয়েছেন।

তার ফেসবুক পাতায় মি লেনিন আতিউর রহমানকে ড মুহাম্মদ ইউনুসের "চেলা" হিসাবে আখ্যা দিয়ে লিখেছেন, "টাকা চুরি যাওয়া এবং তথ্য গোপন করে দায়িত্বহীন আচরণের জন্য অবিলম্বে আতিউরকে গভর্নরের পদ থেকে অপসারণ করা উচিত"।


মন্তব্য