kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


'কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে আনতে বিধিবদ্ধ অঙ্গীকার প্রয়োজন'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ১৯:২৬



'কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে আনতে বিধিবদ্ধ অঙ্গীকার প্রয়োজন'

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, উদীয়মান বহুমুখী সম্ভাবনাময় এশিয়ায় বিশ্বের ৬০ শতাংশ মানুষ বসবাস করছে এবং একই সাথে গত তিন দশকে বিশ্বের প্রাকৃতিক দুর্যোগের ৪৫ শতাংশ এই অঞ্চলকেই মোকাবেলা করতে হয়েছে। বাংলাদেশসহ বহু দেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ু পরিবর্তন কেবল থিউরি নয় এবং এটি প্রতিদিনের বাস্তবতা ।

দিল্লীতে ‘এ্যাডভানচিং এশিয়া ইনভেস্টিং ফর দি ফিউচার’ শীর্ষক উচ্চপর্যায়ের এক সম্মেলনে গতকাল গভর্নর একথা বলেন। গভর্নর দিল্লীতে ১১ থেকে ১৩ মার্চ -২০১৬ আইএমএফ-সরকার উচ্চ পর্যায়ের এই সম্মেলন যোগ দিয়েছেন।
বাংলাদেশ ব্যাংক আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানায়।
উদ্বোধনী অধিবেশনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মূল বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইএমএফ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিন লেগার্দ। সম্মেলনে এশিয়ান প্রবৃদ্ধির মডেল’স এশিয়ার আর্থসামাজিক ইস্যু, বিনিয়োগ এবং জলবায়ু পরিবর্তনসহ ৬টি বিষয়ে আলোচনা হয়। এ অঞ্চলের ৩০টি দেশ সম্মেলনে অংশ নিয়েছে।
গভর্ণর বলেন, প্রত্যাশিত এবং ন্যায়সংগত প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়ন নিশ্চিত করতে মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদে প্রদর্শিত ক্রমবর্ধমান কার্বন নি:সরণ কমিয়ে আনতে সুস্পষ্ট ও আইনী অঙ্গীকার প্রয়োজন।
ড. আতিউর ‘ডেভলপিং এশিয়া চ্যালেঞ্জেস অব ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ইকোনমিক রেজিলেন্স’ সেশনে একজন প্যানেলিস্ট হিসাবে ১২ মার্চ বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও এডিবি প্রেসিডেন্ট তাকিহিকো নাকাও এবং ইউএনডিপি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর হেলেন ক্লার্ক বক্তব্য রাখেন।
জলবায়ু পরিবর্তনে বিরূপ প্রভাব মোকাবেলা, প্রশমন ও অভিযোজনের জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি ও বিনিয়োগের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়।
গভর্নর আতিউর রহমান বলেন, এশিয়া সৃজনশীলপূর্ণ এবং এ ধরণের দীর্ঘ মেয়াদী চ্যালেন্স মোকাবেলা ও এর সমাধানে একত্রে কাজ করছে। তিনি বলেন এ অঞ্চলের কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর জন্য তাদের সরকারের টেকসই প্রবৃদ্ধির এজেন্ডার সমর্থন প্রয়োজন।
ইউএনডিপি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর হেলেন ক্লার্ক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সাফল্য অর্জন এবং রোল মডেলে পরিণত হওয়ায় বাংলাদেশের ভূয়শী প্রশংসা করেন।
তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকি মোকাবেলা দ্রুত ব্যবস্থা নিতে সক্ষম না হলে বিশ্বের মানব উন্নয়ন সূচকের সাম্প্রতিক অগ্রগতি খর্ব হতে পারে।


মন্তব্য