kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মানব পাচার রোধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে : চুমকি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৪০



মানব পাচার রোধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে : চুমকি

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন, মানব পাচার রোধে আইন প্রয়োগের পাশাপাশি পরিবারসহ সকলকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
পাচারের শিকার নারী ও শিশুর সুরক্ষার বিষয়কে গুরুত্ব দিতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকারের পাশাপাশি নারী ও শিশুর অভিভাবকরা সচেতন না হলে পাচার বন্ধ করা যাবে না।


আজ রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘শিশু পাচার প্রতিরোধে কমিউনিটিকে শক্তিশালীকরন এবং নেটওয়াকিং প্রকল্পে’র উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।
মানব পাচাররোধে প্রিভেনশন ও প্রোটেকশন জরুরী উল্লেখ করে চুমকি বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে জাতীয় হেল্পলাইন সেন্টারের ১০৯২১ নম্বরে কল করলে নির্যাতিত নারী ও শিশু প্রতিকার পেতে পারে। এ বিষয়ে সকলকে অবহিত করতে হবে।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার নারী ও শিশু পাচার রোধে নানা কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে । এরই ধারাবাহিকতায় তৃণমূল পর্যায় থেকে উচ্চপর্যায় পর্যন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে জনসচেতনতাসহ নানা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।
তিনি বলেন, পার্শবর্তী ৮ টি দেশের সংশ্লিষ্টদের নিয়ে দেশগুলোর সঙ্গে পাচার প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছি। নেটওয়াকিং ও মনিটরিং বৃদ্ধি করলে পাচার বন্ধ হতে পারে।
এসময় তিনি পাচার সমস্যা সমাধানে কমিউনিটি নেটওয়ার্ক বাড়ানোর উপরও গুরুত্বারোপ করেন।
চুমকি বলেন,পাচারের শিকার ব্যক্তিদের সুরক্ষা প্রদান, ভিকটিমকে খুঁজে বের করা এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। মানব পাচার দমন ও প্রতিরোধ আইন (২০১২) ও ১৯৭৪ সালে করা শিশু সুরক্ষা আইন সর্ম্পকে সকলকে সচেতন হবারও অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবি সমিতির নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট সালমা আলী।
এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন ,নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত লিওনে কোয়ালেনারা,মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়য়ের যুগ্ম সচিব আমিনুল ইসলাম,আইন ও বিচার মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব উম্মেকুলসুমপ্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইনসিডিন এর নির্বাহী পরিচালক এ কেএম মাসুদ আলী।


মন্তব্য