'তামাকজনিত মৃত্যু রোধে সচিত্র-335123 | জাতীয় | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১০ আশ্বিন ১৪২৩ । ২২ জিলহজ ১৪৩৭


'তামাকজনিত মৃত্যু রোধে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী বাস্তবায়ন করা হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৫৬



'তামাকজনিত মৃত্যু রোধে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী বাস্তবায়ন করা হবে'

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, তামাকজাত পণ্যের প্যাকেটের উপরিভাগে ৫০ ভাগ রঙ্গিন ছবি ও লেখা সম্বলিত স্বাস্থ্য সতর্কবাণী বাস্তবায়ন করা হবে।
আজ শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘তামাকজনিত মৃত্যু রোধে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী বাস্তবায়ন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ ইউনাইটেড ফোরাম এগেইনেস্ট টোব্যাকো, প্রজ্ঞা এবং এন্ট্রি টোব্যাকো মিডিয়া এলায়েন্স- আত্মা যৌথভাবে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।
তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেট, মোড়ক, কার্টুন বা কৌটায় তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহারের কারণে সৃষ্ট ক্ষতি সম্পর্কিত রঙ্গিন ছবি ও লেখা সম্বলিত স্বাস্থ্য সতর্কবাণী মুদ্রণ বাধ্যতামূলক করার বিধানটি বাস্তবায়ন করার লক্ষে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
‘ইউনাইটেড ফোরাম এগেইনস্ট টোবাকো’র চেয়ারম্যান জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু, নাটাবের সভাপতি মোজাফফর হোসেন পল্টু, সংসদ সদস্য কাজী রোজী, আবুল কালাম ও কামরুন নাহার, মানস-এর সভাপতি ডা. অরুপ রতন চৌধুরী, বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. ওবায়দুল বাকী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
ধুমপান মুক্ত সমাজ গড়তে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, যে কোন বিষয়ে কাজ করতে হলে শুধু রাষ্ট্রের একার পক্ষে সম্ভব নয়। সে ক্ষেত্রে সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।
শুধু সরকার নয়, সাংবাদিক, ইমাম, শিক্ষক, অভিবাবক সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আলেম-ওলামারা ধুমপান বিরোধী কথা বললে সমাজে সেটার প্রভার বেশি পরবে বলে বলেন তিনি।
মন্ত্রী বলেন, শিক্ষা অঙ্গনে ছাত্র-ছাত্রীরা কেন ধুমপান করবে ? অভিবাকরা সতর্ক না থাকার কারনেই এটা বেশি হচ্ছে। তাই সন্তানদের ধুমপান মুক্ত রাখতে অভিবাবকদের নজরদারি বৃদ্ধি করতে হবে।
আব্দুল মতিন খসরু– বলেন, তামাক জাত দ্রব্যে উৎপাদনের ক্ষেত্রে কর বাড়াতে হবে।
আগামী ১৯ মার্চের মধ্যে সকল তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেট, মোড়ক, কার্টুন বা কৌটায় তামাকজাত দ্রব্যের ব্যাবহারের কারণে সৃষ্ট ক্ষতি সর্ম্পকিত রঙ্গিন ছবি ও লেখা সম্বলিত স্বাস্থ্য সতর্কবাণী মুদ্রন বাধ্যতামূলক করে সরকার ২০০৫ সালের ‘ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইনটি আরও শক্তিশালী করে ২০১৩ সালে সংশোধন করে।
সরকার আইনের এই ধারা প্রতিপালনে তামাক কোম্পানি গুলোকে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের বিধিমালা, ২০১৫ কার্যকর হওয়ার দিন থেকে ১২ মাস সময় বেঁধে দেয় যা আগামী ১৯ মার্চ ২০১৬ তারিখে শেষ হচ্ছে। বিধান অনুযায়ী সকল তামাক কোম্পানি গুলোকে এসময়ের মধ্যেই তামাক পণ্যের প্যাকেট বা মোড়কে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী মুদ্রণ নিশ্চিত করতে হবে।

মন্তব্য