kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যুদ্ধাপরাধীদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া ভণ্ডামি : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ মার্চ, ২০১৬ ২০:৪৭



যুদ্ধাপরাধীদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া ভণ্ডামি : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

যুদ্ধাপরাধ প্রমাণিত হলে মৃত্যুদণ্ডই আসামির একমাত্র সাজা হওয়া উচিত বলে মনে করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। যুদ্ধাপরাধের দায়ে সম্পদ বাজেয়াপ্ত, সন্তানদের ভোটাধিকার হরণ ও সরকারি চাকরিতে অযোগ্য ঘোষণারও দাবি জানিয়েছেন এই মুক্তিযোদ্ধা।

আজ শুক্রবার অনুভব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড’ এর বার্ষিক সাধারণ সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি বারবার বলে আসছি- যুদ্ধাপরাধীদের ন্যূনতম শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হোক। তাদেরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া ভণ্ডামি। তাদেরকে হয় ফাঁসি অথবা নির্দোষ প্রমাণ হলে খালাস দেওয়া হোক।

জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে কথা বলার জন্য মাঝে মধ্যে তাকে ‘খেসারত দিতে হচ্ছে’ মন্তব্য করে  মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী বলেন, কয়েকদিন পর এ নিয়ে আদালতে হাজির হতে হবে। ওরা মোবাইলে এসএমএস পাঠায়, চিঠি পাঠায়, কাফনের কাপড় পাঠায়। কিন্তু আমি মৃত্যুকে ভয় পাই না।

তিনি আরো বলেন, জামায়াত দলীয় সিদ্ধান্তে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছে। তাই দল হিসাবে জামায়াত নিষিদ্ধের দাবি জানাচ্ছি। তাদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হোক। ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়া হোক। তাদের সন্তানরা যাতে কোনো সরকারি চাকরি না পায়। এই অধিকারগুলো কেড়ে নেওয়া হোক।

দেশ ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে চলছে মন্তব্য করে মোজাম্মেল হক বলেন, ওরা সুযোগ পেলেই সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়ায়। শুধু যে হিন্দুদের হত্যা করে তা নয়, আমাদের মুসলমানদেরও হত্যা করছে, মন্দিরে হামলা চালাচ্ছে, মসজিদে হামলা করছে, শিয়া-সুন্নি বিবাদ সৃষ্টি করছে।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে অনুভব বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি সাবেক সচিব হিরালাল বালা, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জিতেন্দ্র লাল ভৌমিক, সহ-সভাপতি কৈলাশ চন্দ্র বাড়ৈ, সাধারণ সম্পাদক মানস কুমার মিত্র, যুগ্ম সম্পাদক ফণি ভূষণ রায়, কোষাধ্যক্ষ ভোলানাথ পোদ্দার উপস্থিত ছিলেন।

 


মন্তব্য