প্রবাসী শ্রমিকদের বীমা নিশ্চিত করতে-334446 | জাতীয় | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০১৬। ১৭ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৯ জিলহজ ১৪৩৭


প্রবাসী শ্রমিকদের বীমা নিশ্চিত করতে বীমা কম্পানি গঠনের সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ মার্চ, ২০১৬ ২০:৩৫



প্রবাসী শ্রমিকদের বীমা নিশ্চিত করতে বীমা কম্পানি গঠনের সুপারিশ

বিদেশে কর্মী পাঠানোর আগে তাদের বীমা নিশ্চিত করতে বিশেষায়িত বীমা কম্পানি গঠনের সুপারিশ করেছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটি জি টু জি প্লাস চুক্তির শর্ত অনুযায়ী শ্রমিকরা যাতে দ্রুত মালয়েশিয়ায় যেতে পারে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ দিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। কমিটির সভাপতি নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরুল ইসলাম, হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন, মো. ইসরাফিল আলম, মো. আয়েন উদ্দিন এবং মাহজাবীন মোর্শেদ অংশ নেন।

বৈঠকে জানানো হয়, জি টু জি প্লাস চুক্তিটি গত ১৮ ফেব্রুয়ারী স্বাক্ষরিত হওয়ায় মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণের জন্য বাংলাদেশ সোর্স কান্ট্রি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এর ফলে অন্যান্য সোর্স কান্ট্রির ন্যায় বাংলাদেশ থেকে সকল সেক্টরে কর্মী নিয়োগের সুযোগ উন্মুক্ত হয়েছে। এ বিষয়ে আলোচনা শেষে কমিটির পক্ষ থেকে চুক্তির শর্ত অনুযায়ী শ্রমিকরা যাতে দ্রুত মালয়েশিয়ায় যেতে পারে তার সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সদস্য মাহজাবীন মোর্শেদ বলেন, আমাদের দেশের শ্রমিকরা বিদেশে গিয়ে অনেক দুর্ঘটনায় পড়ে। প্রাণহানির ঘটনাও ঘটে। এ ধরনের ঘটনার পর ওই শ্রমিকের পরিবার বিপদে পড়ে। শ্রমিকদের যদি ইনসুরেন্স করা থাকে তাহলে কিছুটা নিরাপত্তা থাকে। এজন্য কমিটি বিদেশে যাওয়ার আগে বীমা নিশ্চিত করার সুপারিশ করেছে।

কমিটির পক্ষ থেকে চুক্তি অনুযায়ী মালেশিয়ায় দ্রুত শ্রমিক পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণের তাগিদ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে মাহজাবীন মোর্শেদ জানান, নতুন শ্রমিক পাঠানোর পাশাপাশি কমিটি মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী অবৈধ বাংলাদেশি শ্রমিকদের বৈধ করার বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে তৎপর হওয়ার জন্য বলা হয়েছে। কারণ যেসব অবৈধ কর্মী মালয়েশিয়ায় আছে তাদের অবস্থা মানবেতর। এছাড়া বৈঠকে নারীদেরকে শুধু গৃহকর্মী হিসেবে না পাঠিয়ে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অন্যান্য মর্যাদাপূর্ণ পেশার কর্মী হিসেবে পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

 

মন্তব্য