kalerkantho


জেন্ডার সমতায় বাংলাদেশে অনেক সাফল্য অর্জিত হয়েছে : স্পিকার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৪৪



জেন্ডার সমতায় বাংলাদেশে অনেক সাফল্য অর্জিত হয়েছে : স্পিকার

স্পিকার ও সিপিএ’র চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, নারী শিক্ষা, জেন্ডার সমতা ও নারী ক্ষমতায়নে বর্তমান সরকার বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করায় এক্ষেত্রে অনেক সাফল্য অর্জিত হয়েছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের এ সাফল্য আজ বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি পেয়েছে।
বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ব্রিটিশ হাই কমিশনার এলিসন ব্লেক আজ সংসদ ভবনে তার সাথে সাক্ষাৎ করলে তিনি এ কথা বলেন।
সাক্ষাৎকালে তাঁরা দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কসহ আসন্ন সিপিএ সম্মেলন, সিপিএ ইয়ুথ রোড-শো, নারী শিক্ষা, জেন্ডার সমতা, নারী ক্ষমতায়ন, বাল্য বিবাহ, জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতিমালা, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, দ্বিপাক্ষীক বানিজ্য, বৃটেনে বসবাসরত বাংলাদেশী জনগণের অবস্থা ইত্যাদি বিষয়ে মত বিনিময় করেন।
স্পিকার বলেন, গত ২মার্চ, ২০১৬ কমনওয়েলথ দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে ‘সিপিএ রোড-শো অন পার্লামেন্টারি ডেমোক্রেসি’ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এটি কমনওয়েলথ এর বিভিন্ন অঞ্চলের দেশসমূহে চলবে। তিনি বলেন, সম্প্রতি তাঁর ভারত সফরের সময় দেশের তরুণ সমাজকে সংসদীয় গণতন্ত্র সম্পর্কে অবহিত করণের লক্ষ্যে পরিচালিত এই কর্মসূচী ভারতের লোকসভা ও সরকার প্রধান কর্তৃক প্রশংসিত হয়েছে।
স্পিকার বলেন, বাল্য বিবাহ রোধে গ্রাম-গঞ্জেও ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। নারী শিক্ষা কার্যক্রম বাংলাদেশে যেভাবে এগিয়ে চলছে, তাতে সহসাই এদেশ বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে সক্ষম হবে।
ব্রিটিশ হাই কমিশনার বলেন, বৃটেনে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশী জনগণ বসবাস করছে। তাছাড়া উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের জন্য এদেশ থেকে বহুসংখ্যক শিক্ষার্থী প্রতিনিয়ত গমন করছে।


তিনি বলেন, অতীত থেকে বাংলাদেশি জনগণ বৃটেনে বসবাস করায় তারা বৃটেনের সংস্কৃতি ও রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরেছে। তিনি ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত বাংলাদেশী প্রতিনিধির উল্লেখ করে বলেন, তাঁরা বৃটিশ রাজনীতিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।
হাই কমিশনার বলেন, বাংলাদেশের সাথে যুক্তরাজ্যের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ঐতিহাসিক। তিনি অর্থনীতি, সংস্কৃতিসহ সকল ক্ষেত্রে এসম্পর্ক ভবিষ্যতে আরো সুদৃঢ় হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


মন্তব্য