kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বনানী কবরস্থানে সমাহিত খালিদ মাহমুদ মিঠু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৬ ১৮:৪৬



বনানী কবরস্থানে সমাহিত খালিদ মাহমুদ মিঠু

চলচ্চিত্র নির্মাতা ও চিত্রশিল্পী খালিদ মাহমুদ মিঠুর মরদেহ বনানী কবরস্থানে তৃতীয় জানাজা শেষে খালু জাঙ্গাহীর হোসেনের কবরে দাফন করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে জোহরের নামাজের পর তার দ্বিতীয় জানাজা হয়।

এর আগে প্রথম জানাজা হয়েছিল ধানমন্ডিতে। সকাল সাড়ে ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের তার মরদেহ নেওয়া হয়। সেখানে দেশের বরেণ্য ব্যক্তি ও সাধারণ মানুষ শ্রদ্ধা জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দ্র মজুমদার, সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছসহ অনেকে।

সোমবার দুপুরে ধানমন্ডির চার নম্বর সড়কে গাছচাপায় মারা যান এই চলচ্চিত্র নির্মাতা। খালিদ মাহমুদ মিঠুর সহধর্মিনী কনকচাঁপা চাকমাও একজন খ্যাতনামা চিত্রশিল্পী। এই দম্পতির দুই সন্তান- আর্য শ্রেষ্ঠ ও শিরোপা পূর্ণ।

এরপর সাড়ে ১১টার দিকে তার মরদেহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদে নেওয়া হয়। সেখানে মিঠুর প্রতি শ্রদ্ধা জানান স্বাধীনতা চিত্রশিল্পী সংসদ, গ্রাফিক ডিজাইনার অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, গ্যালারি টোয়েন্টিওয়ান, চারুকলা অনুষদ শাখা ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন ও চারুকলা অনুষদের বিভিন্ন বিভাগ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

খালিদ মাহমুদ মিঠুর জন্ম ১৯৬০ সালে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অংকন চিত্রায়ন বিভাগ থেকে ১৯৮৬ সালে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন তিনি। তার পরিচালিত প্রথম ছবি ‘গহীনে শব্দ’ মুক্তি পায় ২০১০ সালে। প্রথম ছবিই তাকে এনে দেয় শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্তির সম্মান। ওই বছর ছবিটি শ্রেষ্ঠ পরিচারলকসহ চারটি ক্যাটাগরিতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করে। তার দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘জোনাকির আলো’। আগামী শুক্রবার ধানমণ্ডি ৩৬/১ ৪ নং রোডে খালিদ মাহমুদের বাসায় তার কুলখানি হবে।

 


মন্তব্য