kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ মার্চ, ২০১৬ ২৩:৪০



বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপিত হয়েছে।
এবারের নারী দিবসের প্রতিপাদ্য ‘অধিকার মর্যাদায় নারী-পুরুষ সমানে সমান’।


মোমবাতি প্রজ্বলন,র‌্যালি ,আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি উদযাপন করা হয়।
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো সারাদেশে সরকারি ও বেসরকারি সংগঠনসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন
যথাযোগ্য মর্যদায় নানা উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে স্বতঃস্ফূর্তভাবে দিবসটি পালন করেছে।
আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ পৃথক বাণী দিয়েছেন।
রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ নারীর ক্ষমতায়ন, সমসুযোগ, সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা এবং জাতীয় উন্নয়নের মূলধারায় নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে দারিদ্র্র্যমুক্ত সুখী-সমৃদ্ধ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নারী-পুরুষ সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক জীবনের সর্বস্তরে নারীর সমঅধিকার প্রতিষ্ঠায় নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলকে সমানভাবে এগিয়ে আসতে হবে।
এ পরিপ্রেক্ষিতে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস-২০১৬’ এর মূল প্রতিপাদ্য ‘অধিকার, মর্যাদায় নারী-পুরুষ সমানে সমান’ যথার্থ হয়েছে বলে রাষ্ট্রপতি উল্লেখ করেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদেরকে নিজেদের কর্ম,মর্যাদা ও আত্মবিশ্বাসের মাধ্যমে স্বাবলম্বি হয়ে ওঠার আহবান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন,‘আমাদের কারো মুখাপেক্ষী হলে চলবে না। নিজেদের ভাগ্য নিজেদেরই গড়তে হবে, নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে, আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলতে হবে। তবেই মর্যাদা পাওয়া যাবে। কেঁদে কেঁদে ফিরলে মর্যাদা কেউ হাতে তুলে দিবে না। বরং করুনা করবে। আর করুনা নিয়ে মেয়েরা বাঁচতে পারে না। ’
এদিকে জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রথমবারের মতো আয়োজিত আন্তর্জাতিক নারী দিবসে জাতীয় প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে আগামী বছর থেকে নারী সাংবাদিকদের কাজের মূল্যায়নে সম্মাননাও ফেলোশিপ দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মো: শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম চৌধুরীর পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ও সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, জাতীয় প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস)’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, বিএফইউজে’র মহাসচিব ওমর ফারুক, ডিইউজে’র সভাপতি শাবান মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, নিউজ টোয়েন্টিফোর এর প্রধান বার্তা সম্পাদক শাহনাজ মুন্নি প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগর কমিটি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় রাশেদ খান মেনন বলেন,সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য প্রয়োজন নারী-পুরুষের সম্মিলিত সংগ্রাম।
সংগঠনের ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে শহীদ রাসেল মঞ্চে সংসদ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়, সদস্য হাজেরা সুলতানা ,অ্যাডভোকেট জোবায়দা পারভীনপ্রমুখ, বক্তৃতা করেন।
জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) এর যৌথ উদ্যোগে ‘গণমাধ্যমে নারী’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেছেন, নারীদের ক্ষমতায়ন ও গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে মৌলবাদি গোষ্ঠি। তারা ধর্মীয় অনুশাসনের নামে নারীকে ঘরবন্দি ও ভোগের সামগ্রী বানিয়ে রাখতে চায়।
ডিইউজে সভাপতি শাবান মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজে মহাসচিব ওমর ফারুক, জাতীয় প্রেসক্লাব ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য আজিজুল ইসলাম ভুঁইয়া, নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা মিনুসহ অনেকে।
অনুষ্ঠানে নারী সাংবাদিকদের মধ্যে থেকে আরও বক্তব্য রাখেন আকতার জাহান মালিক, ডিইউজে কোষাধ্যক্ষ সেবিকা রানী বক্তব্য রাখেন।
“নারী-পুরুষের অঙ্গীকারে গড়ে তুলি সমতার বিশ্ব”- এই শ্লোগানকে সামনে নিয়ে আমরাই পারি পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যৌথভাবে ৮ মার্চ রাত ১২টা ০১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আঁধার ভাঙ্গার এক বিশেষ আয়োজন উদ্যাপন করেছে।
রাত ১২ টা ১ মিনিটে মোমবাতি প্রজ্বলনের মধ্য দিয়ে এ আয়োজনে শপথ বাক্য পাঠ করা হয়।
নারীর চলাচলকে সুগম করার এই প্রতীকী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে, ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র - সকল ক্ষেত্রে নারী পুরুষের সমান অংশগ্রহণ, সমঅংশীদারিত্ব, সমঅধিকার এবং সমমর্যাদা নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে বিশ্বে সমতা প্রতিষ্ঠার দাবী জানানো হয়।
এ আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক এবং আমরাই পারি পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোটের চেয়ারপার্সন ও তত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল।
এছাড়া এ আয়োজনে আরও উপস্থিত ছিলেন সচিব, নাছিমা বেগম, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, নেদারল্যান্ডস এম্বাসি’র এম্বাসাডর লিওনী এম. কুলেনারে এবং রাজকীয় নেদারল্যান্ডস এম্বাসি’র ফার্স্ট সেক্রেটারি এলা ডি ভুক্ষদ্, সুইডিশ এম্বাসেডর এইচ.ই. জোহান ফ্রিসেল, আমরাই পারি জোট-এর কো-চেয়ারপার্সন শাহীন আনাম, অক্সফ্যাম প্রতিনিধি নাজমুন নাহার, অনন্যা সম্পাদক তাসমিমা হোসেন ও নাসরীন আওয়াল মিন্টু।
উপস্থিত ছিলেন আরো অনেক নারী সংগঠনের নেত্রীবৃন্দ, গবেষক, সাংবাদিক, লেখক ও দেশ বরেণ্য ব্যক্তিত্ব, যারা নারী নির্যাতন বন্ধের জন্য সংহতি জানিয়েছেন।
‘বাঁচতে শিখো’ নারী সংগঠনের উদ্যোগে আজ জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে র‌্যালি ও মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তারা আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে নারীর প্রতি সকল সহিংসতা বন্ধ করা,জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১ বাস্তবায়ন করা,সিডো সনদ সংরক্ষণে বাঁধাসমূহ প্রত্যাহার করা,নারী ও কন্যার প্রতি রাষ্ট্রীয়,সামাজিক বৈষম্য ও সহিংসতা রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ চাওয়াসহ চৌদ্দ দফা দাবি উপস্থাপন করেন।
অন্যদিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় আন্তজার্তিক নারী দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। ‘প্লানেট ৫০-৫০ বাই ২০৩০ স্টেপ ইট আপ ফর জেন্ডার ইকুইটি’ শীর্ষক এ আলোচনা সভায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.ফারজানা ইসলাম বলেছেন, নারী-পুরুষের সমতা কোনো কোনো ক্ষেত্রে দৃশ্যমান হলেও বাস্তবে এর ভেতর ফাঁক রয়েছে। এই ফাঁকাগুলো পূরণ করার ক্ষেত্রে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।
আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আবুল খায়ের। বেলা এগারোটায় জহির রায়হান মিলনায়তনের সেমিনার হলে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ছাত্রকল্যাণ ও পরামর্শদান কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. রাশেদা আখতার।
এর আগে সকাল দশটায় বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ চত্ত্বর থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে উপাচার্য, প্রো-উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারি, মহিলা ক্লাব, স্কুল ও কলেজের ছাত্র-শিক্ষক প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন।
এদিকে বিকেলে দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ-বিলস এর উদ্যোগে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি প্রেসক্লাব ও পল্টন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। এসময় শ্রমিক নিরাপত্তা ফোরামের আহবায়ক ড.হামিদা হোসেন ও সাবেক এমপি বেগম রওশন জাহান সাথীসহ বিভিন্ন নারী নেত্রী উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়া সারাদেশে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংগঠন নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করে। - বাসস।


মন্তব্য