kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিএনপি আওয়ামী লীগ ফোবিয়ায় আক্রান্ত : সেতুমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ১৫:১৬



বিএনপি আওয়ামী লীগ ফোবিয়ায় আক্রান্ত : সেতুমন্ত্রী

বিএনপি এখন আওয়ামী লীগ ফোবিয়ায় আক্রান্ত বলে উল্লেখ করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ রবিবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ উপলক্ষে আওয়ামী লীগের জনসভা সফল করতে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যৌথসভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

আগামীকাল সোমবার বেলা ৩টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই জনসভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির কথায় কথায় আওয়ামী লীগ। তারা আন্দোলনে ব্যর্থ, দায়ী কে আওয়ামী লীগ। নির্বাচনে তারা আসেনি, দায়ী কে আওয়ামী লীগ। পৌরসভা নির্বাচনে হেরেছে, দায়ী কে আওয়ামী লীগ। ফখরুল ইসলামের ভাই নির্বাচনে জিতেছে, দায়ী কে আওয়ামী লীগ। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী খুঁজে পায় না, দায়ী কে আওয়ামী লীগ। পত্রিকায় দেখলাম তাঁদের দলের তৃণমূলের অনেক প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীক না নিয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করছে। বিএনপি এখন ভয়-ব্যাধিতে আক্রান্ত।

বিএনপি কাউন্সিলকে রঙ্গ-তামাশা বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, তাদের (বিএনপির) কাউন্সিল নিয়ে কত রঙ্গ-তামাশা! চেয়ারপারসন, ভাইস চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছে। গোপনে নির্বাচন হয়ে গেছে। আবার গোপনে নিষেধও করা হয়েছে, চেয়ারপারসন ও ভাইস চেয়ারম্যানকে কেউ যেন অসম্মান না করে। তিনি বলেন, বিএনপির কাউন্সিল হচ্ছে নির্বাচনের নামে একটা তামাশা। আমাদের সেই কাউন্সিল হবে না। আমাদের প্রকাশ্যে শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব হয়, সমর্থন হয়। কেউ যদি সেখানে প্রার্থী হতে চান, কোনো বাধা নেই। আমাদের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে প্রকাশ্যেই নির্বাচন হবে। কাউন্সিল ছাড়া আমাদের কেন্দ্রীয় কমিটি পরিবর্তন করা যায় না। কিন্তু বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি যখন-তখন পরিবর্তন করা যায়, যাকে-তাকে নেতা বানানো যায়।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আজকের ফাইনাল খেলা প্রসঙ্গে বলেছেন, শত্রুর বিপক্ষে জেতা আর মিত্রপক্ষের বিপক্ষে জেতার অনুভূতি এক রকম নয়। আর্জেন্টিনার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের যে আনন্দ, তাদের কাছে বিশ্ব জয়েও সেই আনন্দ নেই। তেমনি একাত্তরের শত্রুপক্ষের বিপক্ষে জেতা আর মিত্র পক্ষ ভারতের বিপক্ষে জেতার অনুভুতি এক হবে না। পাকিস্তানের সঙ্গে জেতাটা ছিল মর্যাদার লড়াই। মিত্রদের সঙ্গেও জিততে হবে। বিশ্বের যেকোনো ক্রিকেট শক্তিকে পরাজিত করার সক্ষমতা আছে। তিনি বলেন, তারপরেও বলব, হারি জিতি নাহি লাজ। ভারতও দুর্বল দল নয়, আমরাও শক্তিশালী। দেখি কী হয়! পরাজয় হলে যেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে উপস্থিতিতে যেন ভাটা না পড়ে!

 


মন্তব্য