kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বর্তমান সরকারের পাশে আছি : বিজেপি নেতা মাধব

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ মার্চ, ২০১৬ ২৩:৩৩



বর্তমান সরকারের পাশে আছি : বিজেপি নেতা মাধব

বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক ধারা সমুন্নত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রশংসা করে ভারতীয় জনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব বলেছেন, আওয়ামী লীগের প্রতি সমর্থন অক্ষুণ্ন রাখার বিষয়ে তারা আন্তরিক। প্রথমবারের মতো ঢাকা সফরে এসে আজ শুক্রবার এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে শেখ হাসিনা নেতৃত্বধীন আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি তার দেশের সমর্থন অব্যাহত রাখতে তারা আন্তরিক।

গত বছরের শুরুর দিকে বিএনপির রাজনৈতিক আন্দোলনের দিকে ইঙ্গিত করে ভারতীয় এই নেতা ‘গণতন্ত্রের নামে ধর্মঘট ও সহিংসতার’ সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, গণতন্ত্রের সুরক্ষার জন্য তিনি কী চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে গেছেন তা বেশ অনুমেয়। যেভাবে তিনি ওই অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে গণতন্ত্রের সুরক্ষা করেছেন তা প্রশংসার দাবিদার।

এ সময় ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্কের নানাদিক নিয়ে কথা বলেন রাম মাধব। তিনি জানান, তার দেশ বাংলাদেশকে ‘বড়ভাই সুলভ’ দৃষ্টিতে দেখে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেরও প্রশংসা করে মাধব বলেন, তিনি যেভাবে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের সুরক্ষা করেছেন তা সত্যি প্রশংসার দাবিদার।

দুই দেশের সম্পর্ককে একটি নতুন মাত্রায় উন্নীত করার অভিপ্রায় জানিয়ে রাম মাধব বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সব সমস্যার সমাধান গণতন্ত্রের মাধ্যমেই সম্ভব। বাংলাদেশের সঙ্গে এই সম্পর্ক আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ অঞ্চলে আমরা দুটি বড় গণতান্ত্রিক দেশ।

তিনি বলেন, গণতন্ত্রের বিস্তৃতি স্বাধীনতা পর্যন্ত। আমাদের সেই স্বাধীনতাকেই লালন করতে হবে, সুরক্ষা দিতে হবে। স্বাধীনতা তখনই বাধাগ্রস্ত হয় যখন অন্য কেউ এর মধ্যে নাক গলায়। তিনি আরো বলেন, দুই দেশের রয়েছে সুলিখিত সংবিধান; তার সুরক্ষা দিতে হবে। এটি আমাদের কোনোভাবেই সংবিধানকে ধ্বংস বা গণতন্ত্রকে ধ্বংসের সম্মতি দেয় না। এটি আমাদের বাস পোড়ানো, সরকারি সম্পত্তি ধ্বংস বা সহিংসতারও সম্মতি দেয় না। একমাত্র শান্তিই দিতে পারে গণতন্তের সুরক্ষা। ”

বর্তমান সরকারের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিজেপি মুখপাত্র বলেন, বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক ধারা সমুন্নত রাখতে আমরা আপনাদের (সরকারের) পাশে আছি।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অগ্রসরমান নেতৃত্ব এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রগতিশীল নেতৃত্বের হাত ধরে আমরা সম্পর্কের একটি নতুন পথে হাঁটা শুরু করেছি।

ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘ভারত-বাংলাদেশ সংলাপে’ নামে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। এর আগে গত বছর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের আগে ভারত-বাংলাদেশ সংলাপের আয়োজন করা হয়েছিল।

 


মন্তব্য