kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'গণমাধ্যমের বিকাশ সাধনে সরকার অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ মার্চ, ২০১৬ ২০:৪২



'গণমাধ্যমের বিকাশ সাধনে সরকার অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে'

নেপালের তথ্য ও যোগাযোগমন্ত্রী শ্রেধান রাই বলেছেন, বাংলাদেশে গণমাধ্যমের স্বাধীন ও দ্রুত বিকাশ লাভ দক্ষিণ এশিয়ার জন্য একটি দৃষ্টান্ত। আজ শুক্রবার তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর সঙ্গে বৈঠককালে তিনি এ কথা বলেন।

নেপাল সফরের দ্বিতীয় ও শেষ দিনে আজ শুক্রবার সকালে তথ্যমন্ত্রী ইনু সেই দেশের তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রী শ্রেধান রাইয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে দুই দেশের জনগণের মধ্যে তথ্য ও সংবাদ আদান-প্রদান বাড়াতে সরকারি বার্তা সংস্থাগুলোর মধ্যে সমঝোতা স্মারক সাক্ষর ও দুই দেশের সাংবাদিকদের সফর বিনিময়ের বিষয়ে মন্ত্রীদ্বয় নীতিগতভাবে একমত হন। এ সময় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে নেপালের সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণে সহযোগিতা করারও প্রস্তাব দেন বলে বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র জানায়।

এই বৈঠকে অন্যদের মধ্যে নেপালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস, জাসদের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শামীম আহমেদ, বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয় প্রধান মোহাম্মদ বারিকুল ইসলাম এবং নেপালের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দুপুরে কাঠমান্ডুতে ‘রিপোর্টার্স ক্লাব অব নপালের সাংবাদিকদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, বাংলাদেশে গণমাধ্যমের আজকের বহুল প্রসার কোনো এলোমেলো যথেচ্ছাচার নয়। এর মূলে রয়েছে সরকারের আন্তরিকতা ও নিয়মনীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল উদ্যোক্তাদের জবাবদিহিতামূলক প্রতিষ্ঠানিক প্রক্রিয়া।

তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, দুই হাজারেরও বেশি সংবাদপত্রের পাশাপাশি বেসরকারিখাতে টেলিভিশন, রেডিও, কমিউনিটি রেডিও ও অনলাইন গণমাধ্যমের বিকাশ সাধনে সরকার অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে, যা দেশের গণতন্ত্রকে সুসংহত ও আরও জবাবদিহিমূলক করবে।

এ ছাড়াও গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে নেপালী কংগ্রেস দলের ১৩তম মহা সম্মেলনে আমন্ত্রিত বক্তা হিসেবে দেওয়া বক্তৃতায় মন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে ‘গঙ্গা-হিমালয়-বদ্বীপ সমন্বিত পরিকল্পনার বিষয়ে কাজ করার জন্যও নেপালী কংগ্রেস সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

 


মন্তব্য