গণতন্ত্রের ভিত মজবুতে যুব সমাজকে-331344 | জাতীয় | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


গণতন্ত্রের ভিত মজবুতে যুব সমাজকে সচেতন করে তুলতে হবে : স্পিকার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ মার্চ, ২০১৬ ১৮:২৫



গণতন্ত্রের ভিত মজবুতে যুব সমাজকে সচেতন করে তুলতে হবে : স্পিকার

স্পিকার ও সিপিএ চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গণতন্ত্র তথা সংসদীয় গণতন্ত্রের ভিত আরো মজবুত করতে যুব সমাজকে এ প্রক্রিয়া সম্পর্কে সচেতন ও আগ্রহী করে তুলতে কমনওয়েলথ পার্লামেন্ট এসোসিয়েশনভূক্ত (সিপিএ) দেশ সমূহের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
আজ সংবিধান, সংসদ, গণতন্ত্র, রাষ্ট্র ও রাষ্ট্রীয় কাঠামো সম্পর্কে যুব ও তরুণ সমাজের মধ্যে সম্যক ধারনা সৃষ্টি, সচেতন ও আগ্রহী করে তুলতে সিপিএ রোড শো’র উদ্বোধন শেষে সংসদ মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে স্পিকার এ আহবান জানান।
আজ থেকে এ রোড শো কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সিপিএভুক্ত ৯টি আঞ্চলিক পর্যায়ের দেশসমূহের স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের এই কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করা হবে। তবে বাংলাদেশ থেকেই এর যাত্রা শুরু হয়েছে । পর্যায়ক্রমে কমনওয়েলথ ভুক্ত সব দেশে এই রোড শো কর্মসূচি পালিত হবে।
জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন এই কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন। রাজধানীর ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ, সরকারি বিজ্ঞান কলেজ, বিএএফ শাহীন কলেজ, শেরেবাংলা নগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং শেরেবাংলা নগর বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৫০জন ছাত্র-ছাত্রীরা এ রোড শো’তে অংশ নেয়।
এর আগে শিক্ষার্থীদের সাথে স্পিকার ও অভিজ্ঞ সংসদ সদস্যদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এমপি, অধ্যাপক আলী আশরাফ ও হুইপ শহীদুজ্জামান সরকার সংবিধান, গণতন্ত্র, সংসদ, রাষ্ট্রীয় কাঠামো নিয়ে বক্তব্য রাখেন।
এর পর সংবাদ সম্মেলনে সিপিএ চেয়ারম্যান ও স্পিকার সিপিএ রোড শো সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। স্পিকার বলেন, কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারী এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আজ সিপিএ রোড শোর উদ্বোধন করা হয়েছে ।
তিনি বলেন, দেশের যুব সমাজ হলো কমনওয়েলথ এর ভবিষ্যৎ। সিপিএ দেশের যুব সমাজকে একই মঞ্চে একীভূত করে তাদের সামনে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু তুলে ধরতে চায়, যা তাদেরকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে সহায়তা করবে। আর জাতির যোগ্য ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব গড়ে তুলতেই সিপিএ এ কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।
সিপিএ চেয়ারপার্সন বলেন, সিপিএ হলো বিশ্বের ১৮০টি পার্লামেন্টের একটি অনন্য নেটওয়ার্ক এবং সিপিএ রোড-শো যুবসমাজকে গণতন্ত্র চর্চায় উদ্বুদ্ধ করবে।
স্পিকার বলেন, সংসদ কিভাবে চলে, আইন প্রণয়নের নিয়ম, নির্বাহী আদেশ এসব বিষয়ে আগ্রহী করে তুলতে এই ইয়ূথ রোড শো। এসব বিষয়ে ধারনা দেয়াই এ কর্মসূচির লক্ষ্য।
তিনি বলেন, বাংলাদেশে প্রথমে বিভাগীয় পর্যায়ে এই রোড শো হবে। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে এ কর্মসূচি পালন করা হবে।
সিপিএ এ কর্মকান্ডের মাধ্যমে কমনওয়েলথভুক্ত দেশসমূহের সংসদ-সদস্য ও তাঁদের সঙ্গে ব্যক্তিবর্গ সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও কমনওয়েলথের বিকশিত মূল্যবোধ এগিয়ে নেয়ার মানদন্ড নির্ধারণে সহায়ক ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। জাতীয় ও প্রাদেশিক প্রায় ১৮০টি পার্লামেন্ট ও ১৭ হাজার আইন প্রণেতাদের আন্তর্জাতিক এ সংগঠনটি কমনওয়েলথের প্রতিশ্রুতিও গণতান্ত্রিক সরকার ব্যবস্থার সর্বোচ্চ মানদন্ড প্রতিষ্ঠায় সম্মিলিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে অধ্যাপক আলী আশরাফ এমপি ও হুইপ শহীদুজ্জামান সরকার উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য