kalerkantho


নৌবাহিনী প্রধানের দায়িত্বভার গ্রহণ করলেন নিজামউদ্দিন আহমেদ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ জানুয়ারি, ২০১৬ ২০:৫৯



নৌবাহিনী প্রধানের দায়িত্বভার গ্রহণ করলেন নিজামউদ্দিন আহমেদ

নবনিযুক্ত নৌবাহিনী প্রধান ভাইস এডমিরাল মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন আহমেদ আজ বাহিনীর প্রধান হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন।
আজ আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এর সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নৌবাহিনী প্রধানের দায়িত্বভার গ্রহণের দিন হতে তাঁকে ভাইস এডমিরাল পদে পদোন্নতি করা হয়।
প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে তাঁর কার্যালয়ে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক এবং বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল আবু এসরার নবনিযুক্ত নৌবাহিনী প্রধানকে ভাইস এডমিরাল র‌্যাংক ব্যাজ পরিয়ে দেন। তিনি এডমিরাল মুহাম্মদ ফরিদ হাবিব, এনবিপি, ওএসপি, বিসিজিএম, এনডিসি, পিএসসি এর স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অবঃ) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কাজী হাবিবুল আউয়াল এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে এ উপলক্ষে নৌ সদর দপ্তরে বুধবার অপরাহ্নে নবনিযুক্ত নৌ প্রধান ভাইস এডমিরাল মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন আহমেদ কমান্ড হস্থান্তর বইয়ে স্বাক্ষর করেন।
এ সময় নবনিযুক্ত নৌবাহিনী প্রধান বিদায়ী নৌ প্রধান এডমিরাল মুহাম্মদ ফরিদ হাবিব এর নিকট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কমান্ড গ্রহণ করেন। এ অনুষ্ঠানে নৌ সদর দপ্তরের প্রিন্সিপাল ষ্টাফ অফিসারগণ, সকল নৌ আঞ্চলিক অধিনায়কগণসহ উর্ধ¡তন নৌ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
নব নিযুক্ত নৌবাহিনী প্রধান ভাইস এডমিরাল মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন আহমেদের জীবন বৃত্তান্ত :
ভাইস এডমিরাল মোহাম্মদ নিজামউদ্দিন আহমেদ ১৯৬০ সালে মাদারীপুর জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম এম এ রশীদ স্কুল শিক্ষক এবং মা মরহুমা মিসেস ফজিলাতুন্নেসা গৃহিনী ছিলেন। তিনি ১৯৭৬ সালে মাদারীপুর ইউনাইটেড ইসলামীয়া সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় হতে লেটার মার্কসহ প্রথম বিভাগে এসএসসি এবং ১৯৭৮ সালে মাদারীপুর নাজিমউদ্দিন সরকারী কলেজ হতে প্রথম বিভাগে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। তিনি ১৯৭৯ সালের ৩০ জানুয়ারি বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে যোগদান করেন এবং তৎকালীন যুগোশ্ল¬াভিয়ার মার্শাল টিটো নেভাল একাডেমি হতে গ্র্যাজুয়েশন লাভ করেন। তিনি ১৯৮১ সালের ১লা আগষ্ট কমিশন প্রাপ্ত হন। ভারতের ওঘঝ ঠঊঘউটজটঞঐণ এর অঝড স্কুল হতে তিনি উরংঃরহপঃরড়হ নম্বরসহ পেশাগত বিশেষজ্ঞ কোর্স সম্পন্ন করেন।
ভাইস এডমিরাল নিজাম ফ্রান্সের প্যারিস হতে আন্তঃবাহিনী স্টাফ কোর্স এবং ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ, মিরপুর হতে এনডিসি কোর্স সম্পন্ন করেন। তাছাড়া তিনি যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডাসহ দেশ- বিদেশে বিভিন্ন কোর্সে অংশগ্রহণ করেন।
চাকুরী জীবনে ভাইস এডমিরাল নিজাম বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি নৌ সদর দপ্তরে পার্সোনেল সার্ভিস পরিদপ্তরের পরিচালক এবং নৌ প্রধানের সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বাংলাদেশ নেভাল একাডেমি এবং ট্যাজ স্কুলের প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। তাছাড়া, তিনি বাংলাদেশ কোষ্ট গার্ড সদর দপ্তরে অপারেশন্স পরিদপ্তরের পরিচালক ছিলেন।
ভাইস এডমিরাল নিজাম টর্পেডো বোট, মাইন সুইপার, গানবোট এবং বিভিন্ন ধরনের টহলযানের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি নৌবাহিনীর তিনটি বৃহৎ ফ্রিগেট কমান্ড করার দূর্লভ সম্মানও অর্জন করেন। তিনি নৌবাহিনীর বিভিন্ন ঘাঁটির কমান্ডের দায়িত্ব অত্যন্ত সাফল্যের সাথে পালন করেন।
পরে তিনি চট্টগ্রামস্থ বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সর্ববৃহৎ এলাকার কমান্ডের দায়িত্ব প্রাপ্ত হন। তিনি দুই বছরের অধিক সময় এরিয়া কমান্ডের দায়িত্ব পালন করেন এবং নৌ প্রধানের প্রশংসা অর্জন করেন। বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে প্রশংসনীয় সার্ভিসের জন্য ভাইস এডমিরাল নিজাম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত অসামান্য সেবা পদক (ওএসপি) -এ ভূষিত হন।
ভাইস এডমিরাল নিজাম জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী মিশন আইভরিকোষ্টে সামরিক পর্যবেক্ষক হিসেবে দক্ষতা ও সাহসীকতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।
ভাইস এডমিরাল নিজাম ২০১২ সালে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদান করে অত্যন্ত সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। এ সময় চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি সরকারের আন্তরিক সহায়তায় চট্টগ্রাম বন্দরের ব্যাপক উন্নতি, সম্প্রসারন এবং আধুনিকায়নের কাজ করেন।
তাছাড়া বিগত প্রায় ৫ বছর বিভিন্ন ক্রান্তিকালে তিনি বন্দরকে সার্বক্ষণিক সচল রেখে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখেন।
চট্টগ্রাম বন্দরের পাশাপাশি তিনি দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর, পায়রা বন্দরের চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন এবং পায়রা বন্দর প্রতিষ্ঠায় বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশে উচ্চতর প্রশিক্ষণের পাশাপাশি তিনি অনেক দেশ ভ্রমণ করেন। তিনি ফ্রেঞ্চ ও সার্ব-ক্রোয়েশিয়া ভাষায় কথা বলা ও লিখায় পারদর্শী। মিসেস নাজমুন নাহার তাঁর সহধর্মিনী। তিনি দু’পুত্র সন্তানের জনক।



মন্তব্য