kalerkantho

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক নিয়ে চোখের সামনে প্রতারণা!

নাজনীন আহমেদ   

২৬ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৫:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক নিয়ে চোখের সামনে প্রতারণা!

গতকাল (২৫-১-১৯) গিয়েছিলাম Bangabandhu sheikh mujib safari park, Gazipur. সাধারণ মানুষের বিনোদনের জায়গা হিসেবে এর জনপ্রিয়তা আছে। এখানে কোর সাফারি পার্ক বলে একটা অংশ আছে যা এই পার্কের মূল আকর্ষণ। এই অংশে ঢুকতে আলাদা টিকেট কাটতে হয়, দাম জনপ্রতি ১০০ টাকা। 

টিকেটের লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে যখন কোর এরিয়ার ভেতরে ঢোকার গেইটে গেলাম তখন আমার ৫ জনের দলের জন্য ৫০০ টাকা দিয়ে টিকেট চাইলাম৷ ওখানে দায়িত্বে থাকা ব্যক্তি আমাকে বলল, টিকেট লাগবেনা, আর কোনো চেকিংও নাই, ঢুকে যান।

আমি বললাম, টাকা দিয়েছি টিকেটের জন্য, লাগুক আার নাই লাগুক, আমাদের টিকেট দেন। ওই ব্যক্তি এবার বলল, টিকেটের বই শেষ হয়ে গেছে, তাই টিকেট দেয়া যাবে না। 

বললাম, টিকেট না দিলে আমি নড়ব না, আমি অনড় দাঁড়িয়ে থাকলাম। তখন ওই ব্যক্তি মহাবিরক্ত হয়ে কাছেই থাকা একজনকে বলল, উনাকে ৫টা টিকেট দাও, আর এই হিসাবটা আলাদা লিখে রাখ। 

বুঝলাম সবাই মিলে যোগসাজশে দুর্নীতি চলছে। দর্শনার্থীদের কাছ থেকে টাকা ঠিকই নিচ্ছে, কিন্তু টিকেট দিচ্ছেনা, অর্থাৎ সরকারের কোষাগারে সে টাকা ঢুকছে না, ঢুকছে ওই দায়িত্ব(!!)প্রাপ্ত ব্যক্তিদের পকেটে। 

চোখের সামনে প্রতারণা!! এর ভাগ কত দূর পর্যন্ত যায় কে জানে! গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অন্তত ১৫০০ দর্শনার্থী ছিল সেখানে। ভাবুন, সারাদিনে কতো জন এসেছে, প্রতিজনের কাছ থেকে ১০০ টাকা!! সাধারণ মানুষ অনেকে বুঝতেই পারছে না এ প্রতারণা! এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রতিকার চাইছি!

নাজনীন আহমেদ, সিনিয়র রিসার্চ ফেলো, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ

(নাগরিক মন্তব্য বিভাগে প্রকাশিত লেখা ও মন্তব্যের দায় একান্তই সংশ্লিষ্ট লেখক বা মন্তব্যকারীর, কালের কণ্ঠ কর্তৃপক্ষ এজন্য কোনোভাবেই দায়ী নন।)

মন্তব্য