kalerkantho


চৌদ্দ রকম মানুষের বাঁকা চোখ উপেক্ষা করে...

রুম্পা সাইয়েদা টাইগার জামান   

৮ মে, ২০১৮ ২১:২৭



চৌদ্দ রকম মানুষের বাঁকা চোখ উপেক্ষা করে...

প্রতীকি চিত্র -ফাইল ফটো

মা দিবস আর নারী দিবস আসলে জাতি উত্তেজিত হয়ে যায় নারী/মা'দের মোটিভেটেড করার জন্য! 

আরে বাপ, চৌদ্দ রকম মানুষের বাঁকা চোখ উপেক্ষা করে, বিয়ের পাত্রি হিসেবেই বড় না হয়ে- যে মেয়েটা নিজেকে প্রতিনিয়ত সামনে ঠেলে দিচ্ছে সে এমনিতেই মোটিভেটেড!

আর যে মেয়েটা নিজের পেটে জ্যান্ত একটা মানুষকে দিনের পর দিন লালন করে পৃথিবীতে নিয়ে আসে- তার থেকে সাহসী মানুষ ওই এভারেস্টে চড়া পর্যটকও না। নিজের ক্যারিয়ার, লাইফস্টাইলকে আমূলে বদলে সে দায়িত্ব নেয় নতুন একটি প্রাণের! আপনার শুভেচ্ছা সূচি তার জীবনে কোনও ছাপ ফেলে না।

বরং- আসলেই আশেপাশে তাকিয়ে দেখুন, এতো কিছুর পরেও যে মেয়েটি আসলেই কাজ করতে চায়, তার জন্য সোসাইটি, সরকার কী করছে! 
সব মেয়েকে উদ্যোক্তা হতে হবে এমন কোনও কথা নেই! কয়েকজন যারা চাকরি করতে চায়, বা নিজের ব্যবসাও সামলাতে চায়- তাদের কি আসলেই মোটিভেটেড করছে আপনাদের কর্পোরেট সমাজ! 

দুইটা বিজ্ঞাপন বানান, মায়ের জন্য মোবাইল নিয়ে যান। কিন্তু মাকে বিদ্যুৎবিহীন ঘরেই আটকে রাখেন- এই হলো আপনাদের সমাজ! যে সমাজে ত্রিশোর্ধ নারীর স্থান শুধু ঘরে! 
ধন্যবাদ
আবার আসবেন!
 রুম্পা সাইেয়দা টাইগার জামান: সংবাদকর্মী, লেখক



মন্তব্য