kalerkantho


সে বাড়ির বড় ছেলে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১২:৩৭



সে বাড়ির বড় ছেলে

গলাটা বন্ধ হয়ে আসছে।

কথাগুলো অস্পষ্ট, মনে হচ্ছে একটু উত্তাপ পেলেই ভেতরের জল বাষ্প হয়ে অশ্রুধারা হয়ে নামবে।
বুকের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসবে না বলা কথাসমূহ!

একটু দ্বিধায় পড়ে যায় মানুষটি ...

ঢাকায় চাকরির আগে মফস্বল শহরে বেশ সুনামের সঙ্গে, দাপটের সঙ্গেই চলতো ছেলেটি। দু’হাতে যেমন আয়-রোজগার করতো, ব্যয়ও করতো তার দ্বিগুণ!

কীভাবে? মাসশেষে দেখা যেতো- দোকানে বাকি পড়ে আছে অনেক টাকা।

কেউ বিপদে পড়ে তার কাছ থেকে সহায়তা পায়নি- এমন রেকর্ড তার শত্রু তারাও বাজাতে পারবে না।

এরপর ঢাকায় চলে যায় সে। ভাল একটা প্রতিষ্ঠানে বেশ বড় টাকার মাইনে...

এভাবে যাচ্ছিল দিন। কিন্তু হঠাৎ করে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান বাবা। মাও অসুস্থ, ছোটবোনের সংসারের নিত্য ঝামেলা...
চাকরি-বাকরি ছেড়ে সোজা নিজশহরে। 

স্বয়ংক্রিয় অভিভাবক হয়ে যায় ছেলেটি। কেননা পরিবারে সেই বড়ছেলে!

বড়ছেলের হ্যাপা এখন হাড়ে হাড়ে টের পায়, অহরহ পাচ্ছেও।

সংসারের রাজনীতিতে হারু পার্টি ছেলেটির প্রথম ভুল (না সরলতা!) বড়বোনকে জমিসহ বাড়ি লিখে দেওয়া। দ্বিতীয় সরলতা ছোটবোনের ভাঙা সংসার জোড়া লাগানোর আপ্রাণ চেষ্টা, ব্যর্থ এবং শেষে তার নামে বড়বোনের সমপরিমাণ জমি লিখে দেওয়া। তৃতীয় দুর্বলতা বাবার পেনশনের সমুদয় টাকা উত্তোলন এবং সেই টাকা ভাই ও বোনদের মাঝে সমবণ্টন; চতুর্থত নিজ নামে থাকা জমি বিক্রি করে দেওয়া। এখন সেই টকাটাই কাল হয়ে আসছে তার জীবনে।
 
সে চাইছে, বাবার ভিটায় একটি মাল্টিস্টোরেড বিল্ডিং কাম কমার্শিয়াল স্পেস তৈরি। যা ভবিষ্যতে সব ভাইবোনের আয়ের উৎস পাশাপাশি আবাসনও!

কিন্তু বিধিবাম! এখানে আপত্তি- বোনদের, ভাইদের। তারা সবাই এখন নগদ টাকাটাই চাইছে ভাগবাটোয়ারা করে নিতে।

বাবার স্মৃতি বিজড়িত পৌরশহরের এই জমিটির কমার্শিয়াল ভ্যালু রয়েছে ব্যাপক। এ নিয়ে দীর্ঘ ১৭ বছর মামলা মোকদ্দমাও চালিয়ে যাচ্ছে সে। কখনো বোন বা ভাইরা সেই মামলার বিষয়ে করেনি কোনও প্রকার সহযোগিতা। এখন বাবার স্মৃতি ভিটেটুকু হাতছাড়া হওয়ার উপায়-

বাবার ভিটে আর টাকাগুলো কোনভাবেই যাতে নষ্ট না হয়- কথাটি বলতেই ছেলেটির মুখ থেকে আর কথা সরে না। 
দু'চোখ বেয়ে নেমে আসে তপ্ত লাভা!

তৌহিদ জামানের ফেসবুক থেকে



মন্তব্য

Lalita commented 14 days ago
dont give up bro , its a continuous usual holy sacrificing process in our cutlure , so ,,,,, keep maintain ur job continuely . may allah bless u ,,