kalerkantho


আব্বা, আপনাকে খুব প্রয়োজন; আপনি চলে আসুন!

আনিসুর বুলবুল   

১৮ জুন, ২০১৭ ২০:৫৩



আব্বা, আপনাকে খুব প্রয়োজন; আপনি চলে আসুন!

রাত দশটা হবে তখন। পাঁচ কি ছয় বছরের এক ছেলেকে নিয়ে বাড়িতে এসেছেন বড় দুলাভাই। তাকে নৌকা ঘাটে পেয়েছে। ঘাটের লোকজন কেউ ছেলেটিকে সঙ্গে নিতে চাচ্ছিলেন না।

চেয়ারম্যানের বড় মেয়ের জামাইকে দেখে সবাই তার কাছেই বুঝে দিয়েছে। সবার ধারণা চেয়ারম্যান বাড়িতে গেলে ছেলেটির একটি গতি হবেই। ছেলেটির নাম নুরু।  

তখন ফেসবুক আসে নাই। ইন্টারনেটও নাই। মোবাইলও নাই। পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেওয়াটাও খুব কঠিন কাজ।

নুরু শুধু তার গ্রামের নাম রায়পুরা বলতে পারছে।

আমার বড় আপার তখন পিঠাপিঠি দুই মেয়ে। বাড়িতে কানাঘোষা চলছে; দুলাভাই ছেলেটিকে কোথাও থেকে নিয়েই আসলো কি না! 

পরদিন সকালে দুলাভাই বাজার থেকে নতুন জামা-প্যান্ট নিয়ে হাজির। নুরুকে বড় আপা গোসল করিয়ে নতুন জামা-প্যান্ট পড়িয়ে মাথায় তেল দিয়ে দিচ্ছেন। আমরা পড়েছি সবাই চিন্তায়! তাহলে এই নুরুকেই কি বড় আপা রেখে দিবে তার কাছে?

দুপুরের দিকে আব্বা বসলেন ছেলেটিকে নিয়ে। খেলার ছলে ছেলেটির কাছ থেকে অনেক তথ্যই জানলেন। আব্বা সিদ্ধান্ত নিলেন, ছেলেটিকে তাদের বাড়িতে পৌঁছে দিবেন। আব্বা নিজেই যাবেন।  

বড় আপার মন খারাপ হয়। তবে বড় দুলাভাই বলেন, তাহলে যাতায়াতের সব খরচ আমিই দেবো। আব্বা রাজি হলেন।

দুইদিন পর আব্বা নুরুকে নিয়ে রওয়ানা হলেন সেই রায়পুরার দিকে। আমি সঙ্গে যেতে চাইলেও আমাকে নেওয়া হলো না।  

একদিন পর আব্বা ফিরে আসলেন। বললেন, নরসিংদীর রায়পুরায় যেতে হয়েছিলো তাকে। নুরুকে পেয়ে তো বাড়ির লোকজন খুশিতে আত্মহারা। আব্বাকে গাছ থেকে নারিকেল পেরে খাওয়ায়। লেবুর শরবত বানিয়ে দিয়েছে।

তখন আমার বয়স আর কতো হবে? ক্লাস ওয়ান কিংবা টু-তে পড়ি তখন! এতো বড় ঘটনা ঘটলো আমার চোখের সামনে। আব্বা তো আমার কাছে পুরাই হিরো। গ্রামের লোকজনের কাছে আব্বা তো অনেক আগে থেকেই হিরো ছিলেন। তা না হলে কি ছেলেটিকে চেয়ারম্যান বাড়িতে পাঠায়! 

তারপর থেকে আব্বার সঙ্গে বাজারে যাই, আব্বার সঙ্গে মাঠে যাই। আব্বার আর পিছু ছাড়ি না। আব্বাকে আর ভয় পাই না।

আজ নুরু হয়তো অনেক বড় হয়ে গেছে। সে হয়তো বিয়ে-শাদিও করেছে। বাচ্চা-কাচ্চাও হয়তো হয়েছে। আমাদের আর জানা হয়নি।  

আমাদের শুধু জানা হয়েছে; আজ আমাদের সেই হিরো আব্বা নেই।

খুব প্রয়োজন ছিলো এখন সেই হিরো আব্বার। আমরা আজ নিজেরাই হারিয়ে যাচ্ছি পারিবারিক বন্ধন থেকে।

আব্বা, আপনাকে খুব প্রয়োজন। আপনি চলে আসুন!

লেখক : বার্তাজীবী


মন্তব্য