kalerkantho

ভালো থাকুন

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ব্রেস্টফিডিংয়ে মায়ের উপকার

মায়ের বুকের দুধ যেমন শিশুর জন্য উপকারী, তেমনি সন্তানকে বুকের দুধ পান করানো মায়ের জন্যও উপকারী। জন্মের পরপরই শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ালে মায়ের দেহে অক্সিটোসিনের নিঃসরণ বাড়ে।

অক্সিটোসিন জরায়ু ও এর রক্তনালিগুলোকে সংকুচিত করতে সহায়তা করে। ফলে জরায়ু থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয় না। সন্তান জন্মদানের পর জরায়ু স্বাভাবিক আকারে দ্রুত ফিরিয়ে আনতে এবং মায়ের শারীরিক গঠন সুন্দর রাখতেও বুকের দুধ খাওয়ানোর ইতিবাচক ভূমিকা রয়েছে। এটি প্রাকৃতিক জন্মনিয়ন্ত্রক হিসেবেও কাজ করে।

গবেষণায় দেখা যায়, বুকের দুধ খাওয়ালে মায়েদের স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি ২৫ শতাংশ এবং ডিম্বাশয় ক্যান্সারের ঝুঁকি ৩০ থেকে ৬০ শতাংশ হ্রাস পায়। কমে জরায়ু ও এন্ডেমেট্রিয়াল ক্যান্সারের ঝুঁকিও। সন্তানকে স্তন পান করানো নারীর হাড়ের ক্ষয়রোগ (অস্টিওপোরেসিস) ও স্বল্প আঘাতে কোমর ভেঙে যাওয়ার ঝুঁকি চার গুণ কমিয়ে দেয়। শুধু শারীরিক দিক দিয়ে নয়, মানসিক স্বাস্থ্যের জন্যও এই অভ্যাস উপকারী। গবেষণায় দেখা গেছে, যাঁরা সন্তানকে নিয়মিত বুকের দুধ খাওয়ান তাঁরা সহজে উত্তেজিত হন না, উদ্বেগ ও হতাশায় দ্রুত ভেঙে পড়েন না।

ডা. মুনতাসীর মারুফ


মন্তব্য