kalerkantho

হচ্ছে নারীর উন্নয়ন, হচ্ছে দেশের উন্নয়ন

৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



► মাত্র কয়েক দিন আগে বাংলাদেশের মেয়েদের ফুটবল টিম মিয়ানমারে ফিলিপাইনকে ১০-০ গোলে এবং মিয়ানমারকে ১-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ রানার্স-আপ হয়েছে। ফুটবল টিমের মেয়েদের মূল্যায়ন করা হতো না কখনোই, কিন্তু মেয়েরা একের পর এক বড় বড় অর্জন ছিনিয়ে এনে নিজেদের অধিকার বুঝে নিচ্ছে এখন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদের ডেকেছেন এবং পুরস্কৃতও করেছেন। স্কুটি চালিয়ে আয় করা শাহনাজ তাঁর স্কুটি হারিয়ে ফেললে পুলিশ প্রশাসন এগিয়ে এসে তাঁর স্কুটি উদ্ধার করে দেয়। শাহনাজের মুখে হাসি ফোটে এবং প্রতিদিন কিছু মানুষ শাহনাজের স্কুটির যাত্রী হয়ে যানজট থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পাচ্ছে। ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের কাজ তো পুরুষদের জন্যই কঠিন, সেখানে নারী পুলিশ অফিসাররা ট্রাফিক জ্যাম সামলানোর দায়িত্ব পালন করছেন কোথাও কোথাও এবং অনিয়ম পেলে তার যথাযথ ব্যবস্থাও নিচ্ছেন। সঙ্গে মহানুভবতা তো ফ্রি আছেই। নারী এসআই শবনম সুলতানা ২০১৮ সালের মে মাসে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে একজন আহত পথচারীকে সেবা দিয়ে আলোচনার বিষয়ে পরিণত হয়েছিলেন সেই সময়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শাসনামলে নারীর উন্নয়ন প্রশংসনীয়ভাবে হচ্ছে এবং নারীর উন্নয়নে দেশের উন্নয়নও হচ্ছে। নারীর উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে আরো বহু দূর, তেমনই আশা আমাদের। পুরুষের উন্নয়নে যেভাবে নারীর ভূমিকা থাকা প্রয়োজন, ঠিক একইভাবে নারীর উন্নয়নেও পুরুষের ভূমিকার প্রয়োজন। পুরুষ সব সময় যদি নারীর আপন হয়ে নারীর পাশে থেকে এবং নারী-পুরুষ মিলেমিশে কাজ করে তাহলে নারী-পুরুষ উভয়ের প্রচেষ্টায় অতিসত্বর বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। এ জন্য শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ সব ক্ষেত্রে যেসব নারী এগিয়ে যাচ্ছে, তাদের সঙ্গে নিয়ে যারা এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে বা এগোতে পারছে না, তাদের জন্য কাজ করতে হবে। এ জন্য সরকারি ও সামাজিক উদ্যোগ দরকার।

আব্দুল্লাহ মুহাম্মাদ যুবায়ের

কল্যাণপুর, ঢাকা।

মন্তব্য