kalerkantho

গণতন্ত্র ও সুশাসনে জোর দিতে হবে

২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বাধীনতা পাওয়ার জন্য বাঙালির মধ্যে যে উদ্যম, আকাঙ্ক্ষা, সাহস ও দেশপ্রেমের জোয়ার সৃষ্টি হয়েছিল, তা ভাষায় বর্ণনা করা কঠিন। ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষ জীবন দিয়ে বাঙালি জাতিকে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করতে সক্ষম হয়েছিল। স্বাধীনতা অর্জনের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির হাজার বছরের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হলো। স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অর্থাৎ গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও শোষণমুক্ত দেশ গঠনের লক্ষ্য নিয়েই আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছিল। স্বাধীনতা অর্জনের পর দেশ অনেক দূর এগিয়েছে। তবে ৩০ লাখ শহীদের স্বপ্নকে পুরোপুরিভাবে আজও বাস্তবায়ন করতে পারিনি। এখনো স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতে হয়। সব ধরনের আবেগ, লোভ-লালসা ও ভয়ভীতির ঊর্ধ্বে উঠে সবাইকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি যাতে দেশ থেকে দূর হয়, সে ব্যাপারেও সচেতন হতে হবে। দেশ অনেক এগিয়েছে। আরো এগিয়ে নিতে দেশের মানুষকে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এক উন্নত, সমৃদ্ধ ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গঠনে চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। মার্চ মাসে স্বাধীনতাযুদ্ধ শুরু হয়েছিল, এই অগ্নিঝরা মার্চেই দেশে গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় নতুন করে শপথ নিতে হবে।

বিপ্লব বিশ্বাস

ফরিদপুর।     

মন্তব্য