kalerkantho


মুনাফা অর্জনই মুখ্য হতে পারে না

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



মোবাইল কম্পানিগুলো বিরক্তি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। বড় সমস্যা ইন্টারনেট সেবা; ফোরজি নেটওয়ার্কে সমস্যা, টুজি স্পিডও দিচ্ছে না। নেটওয়ার্ক আপ-ডাউন তো রয়েছেই। গোপনে অনেক ধরনের চার্জ কেটে নেওয়া হচ্ছে, গ্রাহককে জানানো হচ্ছে না। অটোমেটিক অনেক অফার সংযুক্ত হয়ে যাচ্ছে, চার্জ কেটে নেওয়া হচ্ছে। অফার গ্রহণের চটকদার আহ্বানের প্রচার থাকছে, অফার বন্ধের প্রচার থাকছে না। অটোমেটিক অফারে গ্রাহকের টাকা কেটে নেওয়া হচ্ছে, অনেক গ্রাহক এসব বন্ধ করার নিয়ম না জানার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। রিচার্জে ১০ দিন মেয়াদের স্থলে অনেক ক্ষেত্রে মেয়াদ দেওয়া হচ্ছে মাত্র দুই দিনের। টাকা রিচার্জের পর গ্রাহকের অনুমতি না নিয়ে কম্পানির ইচ্ছামতো ইন্টারনেট বান্ডিল দেওয়া হচ্ছে এবং চার্জ কেটে নেওয়া হচ্ছে। গ্রাহকদের না জানিয়ে ‘এফএনএফ’-এর মতো অনেক সেবা বন্ধ করে দেওয়া হলেও ওয়েবসাইটে সেই অফারের প্রচার বহাল থাকছে। ২০১৭ সালের প্রথম দিকে গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে গ্রামীণফোন, বাংলালিংক ও রবিকে জরিমানা করে ডিএনসিআরপি। মোবাইল অপারেটররা এত বেশি প্যাকেজ ও প্রমোশনাল অফার দিচ্ছে, যা বাছাই করা গ্রাহকের জন্য সত্যিই কঠিন। এসব কমাতে হবে, সব সেবা সহজ-সরল করতে হবে। গ্রাহকদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি বন্ধ করতে হবে। মোবাইল অপারেটরগুলোর প্রতারণা বন্ধ করতে হবে। মুনাফা অর্জনই মুখ্য বিষয়, এ চিন্তা পরিহার করতে হবে। মানবিক চিন্তা মাথায় রেখে অপারেটররা ব্যবসা করুক। স্বচ্ছভাবে মুনাফা অর্জন করুক।

মো. দেলোয়ার হোসেন ভূঁইয়া

লাকসাম, কুমিল্লা।



মন্তব্য