kalerkantho


সত্য প্রকাশে অবিচল থাকুক কালের কণ্ঠ

১২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



সত্য প্রকাশে অবিচল থাকুক কালের কণ্ঠ

‘আংশিক নয়, পুরো সত্য’—এই প্রতিপাদ্য নিয়ে ২০১০ সালের ১০ জানুয়ারি পথচলা শুরু করেছিল কালের কণ্ঠ। সংবাদ, নিবন্ধ, ফিচার, মতামত প্রকাশে অভিনবত্ব ও নান্দনিকতার কারণে শুরুর দিকেই পাঠকের পছন্দের তালিকায় স্থান করে নেয় পত্রিকাটি। বস্তুনিষ্ঠ, অনুসন্ধানী ও চমকপ্রদ খবর কালের কণ্ঠ’র স্মারক হয়ে ওঠে। সততা, নিষ্ঠা, অসাম্প্রদায়িকতা, জনকল্যাণ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে পথচলা অব্যাহত রেখেছে পাঠকপ্রিয় এ দৈনিক। গত ১০ জানুয়ারি তার দশম বছরে পদার্পণ ঘটেছে। টেলিফোন ও ই-মেইলে পাঠকরা আরো বলেছেন, সত্য প্রকাশে কালের কণ্ঠ’র নিষ্ঠা বজায় থাকুক। জন্মদিন উপলক্ষে তাঁরা কালের কণ্ঠ’র সম্পাদক-প্রকাশক, সাংবাদিক, কর্মকর্তা-কর্মচারী সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন

 

►তরুণদের মধ্যে পাঠাভ্যাস গড়ে তুলতে কালের কণ্ঠ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। সাফল্যের সঙ্গে দশম বছরে পা রেখেছে পত্রিকাটি। এ জন্য অভিনন্দন ও শুভ কামনা। নির্ভীক ও অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা না থাকলে দেশ ও দশের উন্নয়ন হয় না। দেশের মানুষ সুখে থাকুক সেটাই আমার প্রত্যাশা। প্রত্যাশা আরো বেড়ে যায় কালের কণ্ঠ’র মতো নির্ভীক অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার চর্চা দেখে। আমাদের জন্ম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে। এই প্রযুক্তিবান্ধব প্রজন্মই দেশকে এগিয়ে নেবে। এ জন্য এ প্রজন্মের মধ্যে অবশ্যই পত্রিকা পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। আমি চাই, তরুণরা আকৃষ্ট হয় এমন কিছু আয়োজন থাকুক এ পত্রিকায়। তরুণদের লেখালেখির উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্ম হোক কালের কণ্ঠ। আলোকিত সমাজ নির্মাণের অংশীদার জনপ্রিয় পত্রিকা কালের কণ্ঠ’র কাছে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন আশা করে আমার মতো লাখো তরুণ।

মোহাম্মদ নূর উদ্দীন

কাটিরহাট, হাটহাজারী, চট্টগ্রাম।

 

► কালের কণ্ঠ’র ১০ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট সবাইকে লালগোলাপ শুভেচ্ছা। দেশ-জাতি, মাটি ও মানুষের কথা বলে যাবে কালের কণ্ঠ।

জাহাঙ্গীর কবির পলাশ

শ্রীধরপুর, বাড়ৈখালী, মুন্সীগঞ্জ।

 

► দশম বছরে পা রাখল কালের কণ্ঠ। এ উপলক্ষে সম্পাদক, প্রকাশক, সাংবাদিক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অভিনন্দন। আশা করি শিশু-কিশোরদের বিষয়গুলোতে আরো জোর দেওয়া হবে। তাদের বিভিন্ন বিষয়ে যেমন—ফেসবুক, মোবাইল ফোন প্রভৃতি বিষয়ে সচেতন করার কাজে আরো মনোযোগী হবে কালের কণ্ঠ।

টিটো রহমান

রাধানগর, পাবনা।

 

► সর্বস্তরের মানুষের আস্থা অর্জন করেছে পত্রিকাটি। সত্য, সুন্দর, সৃজনশীল সংবাদ প্রকাশে কালের কণ্ঠ’র জুড়ি নেই। পত্রিকাটি এরই মধ্যে সততা ও দুঃসাহসিকতার পরিচয় দিতে সক্ষম হয়েছে। নতুন বছরে পত্রিকাটির কাছে আমাদের প্রত্যাশা—অসত্যের কাছে কখনোই যেন বন্ধুত্ব না হয়; অন্তরালের কুচক্রীদের মুখোশ উন্মোচনের প্রয়াস থাকতে হবে; ধর্ম, সমাজ, রাষ্ট্র সব বিষয়ে সত্য সবার আগে প্রকাশ করে যাবে নিরন্তর; ব্যক্তি বা সম্প্রদায়ের প্রতি বিশেষ প্রীতি যেন কখনো না দেখানো হয়; বিতর্কের ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করতে হবে। নতুন নতুন সংবাদকর্মী সৃষ্টি করতে হবে। জনগণের সঙ্গে প্রত্যক্ষ যোগাযোগ বাড়াতে হবে।

মাজহারুল ইসলাম লালন

নকলা, শেরপুর। 

 

► দশম বছরে পদার্পণ করল প্রিয় পত্রিকা কালের কণ্ঠ। প্রথম বছর থেকেই জড়িয়ে আছি কালের কণ্ঠ’র সঙ্গে। মতামত পাতা অনন্য একটি আয়োজন। সংবাদ, নিবন্ধ প্রকাশে, সত্য প্রকাশে আরো সাহসী ভূমিকা পালন করতে হবে।

আসাদুল্লাহ মুক্তা

মহেশপুর, উল্লাপাড়া, সিরাজগঞ্জ।

 

► প্রতিষ্ঠার দশম বছরে কালের কণ্ঠ’র জন্য শুভেচ্ছা। প্রতিদিন কালের কণ্ঠ পড়ি। সব বিভাগই পছন্দের। নতুন কিছু আয়োজন থাকলে ভালো হবে। লেখকদের লেখার জন্য পুরস্কৃত করলে ভালো হয়।

মো. জামরুল ইসলাম

দক্ষিণগাঁও, সবুজবাগ, ঢাকা।

 

► পত্রিকাটির সম্পাদকীয়, মফস্বল, আন্তর্জাতিক—প্রতিটি বিভাগই আকর্ষণীয়। কালের কণ্ঠ বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করে। ভয়ভীতি উপেক্ষা করে লেখকদের মতামত প্রকাশ করছে, সংবাদ প্রকাশ করছে। প্রিয় পত্রিকার জন্মদিন উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা।

ফারুক আহমেদ

বাগমারা, রাজশাহী।

 

► ১০ জানুয়ারি আমরা বাগেরহাটে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় দেশের শীর্ষস্থানীয় দৈনিক সংবাদপত্র ‘কালের কণ্ঠ’র দশম জন্মদিন পালন করেছি। দিনটি উপলক্ষে শীতার্ত মানুষকে কম্বল দিয়ে তৃপ্তি বোধ করেছি। কালের কণ্ঠ’র কাছে আশা করি, ভয়ভীতির উর্ধ্বে থেকে ‘আংশিক নয়, পুরো সত্য’—এই ব্রত নিয়ে এগিয়ে যাবে। ঘুষ, দুর্নীতি, অপসংস্কৃতি, নারী উত্ত্যক্তকারী, স্বাধীনতাবিরোধী চক্র, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হওয়ার প্রেরণা জোগাবে। ‘ধন্যবাদ, স্যার’ বিষয়টি খুব ভালো লেগেছে।

নিমাই কৃষ্ণ সেন

বাগেরহাট।

 

► কালের কণ্ঠ ভালো খবর প্রকাশ করে। বিভিন্ন বিভাগের বর্ণাঢ্য আয়োজন পাঠকদের আকৃষ্ট করে। আশা করি কালের কণ্ঠ তার বলিষ্ঠ ভূমিকা অব্যাহত রাখবে। জন্মদিনে আন্তরিক শুভেচ্ছা।

রাশিদুল ইসলাম

ভাঙ্গুড়া, পাবনা।

 

► কালের কণ্ঠ সফলতার সঙ্গে দশম বছরে পা রাখল। সবাইকে প্রাণঢালা অভিনন্দন। আশা করি আগামী দিনে কালের কণ্ঠ পাঠকদের জন্য নতুন আয়োজন করবে। নতুন ম্যাগাজিন করে তাতে পাঠকের অংশগ্রহণ বাড়াবে। আশা করি কালের কণ্ঠ সত্য প্রকাশে ভূমিকা অব্যাহত রাখবে।

মো. মোকাদ্দেস হোসাইন

গ্রামপাঙ্গাশী, রায়গঞ্জ, সিরাজগঞ্জ।


►  ১০ বছরে পত্রিকাটি সব শ্রেণি, ব্যবসা বা পেশার লোকদের লেখনীতে আস্থার ঠিকানা হিসেবে পরিণত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ অসাম্প্রদায়িক চেতনায় দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে কালের কণ্ঠকে কাজ করতে হবে। এতে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, খেলাধুলা পাতা, ধর্মীয় পাতা, শিশুদের পাতা, গ্রামবাংলার কথা নিয়মিত প্রকাশ করায় মুগ্ধ হয়েছি। নতুন বছরে নতুন আবহে আর্থ-বাণিজ্যিক, রাজনৈতিক অতিথি লেখকদের প্রাণজাগানিয়া অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়ায় ধন্যবাদ। দশম বছরে শিক্ষার কারিগর শিক্ষকদের সম্মানিত করার মধ্য দিয়ে সামাজিক দায়বদ্ধতার কাজ করেছে। এভাবে কাজ অব্যাহত রাখা, অন্যান্য পেশার লোকদেরও সম্মানিত করার উদ্যোগ নেওয়ার প্রয়োজন। আগামী দিনে মানুষের কথা, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে তার ঐতিহ্যকে ধরে রাখবে এবং সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবেপ্রত্যাশা রইল। কালের কণ্ঠ যাত্রা শুভ হোক

মোহা. আব্দুল হান্নান

মানপুর, লাখাই, হবিগঞ্জ

 

অনেক চড়াই-উতরাই বাধাবিপত্তি পেরিয়ে কালের কণ্ঠ দশম বছরে এসে পাঠক মহলে পেয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। বেড়েছে প্রচারসংখ্যা। আগামী দিনগুলোতেও কমবে না এর বিপুল জনপ্রিয়তা পাঠকপ্রিয়তা। পত্রিকাটির বড় সাফল্যমুক্তিযোদ্ধা চেতনার লালন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো, মাদকমুক্ত সমাজের কথা অকপটে প্রকাশ, দেশের উন্নয়ন সাফল্যের চিত্র ধারাবাহিকভাবে পত্রস্থ করাসহ আরো গুরুত্বপূর্ণ নানা বিষয়ে সাফল্য-ব্যর্থতার কথা তুলে ধরা হয়েছে। নতুন বছরে শব্দভেদ সুডোকু বিভাগে পাঠকদের অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করুন এবং পুরস্কার হিসেবে প্রাইজবন্ড কিংবা মোবাইল রিচার্জ দেওয়া যেতে পারে। পড়ালেখা বিভাগেশব্দ শিখিনামে একটি নতুন পর্ব চালু করা হোক। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্ব নিয়ে সাধারণ জ্ঞানের কুইজ প্রতিযোগিতা শুরু করুন। সপ্তাহে একজন পাঠকের সাক্ষাৎকার প্রকাশ করুন

মো. ইলিয়াছ হোসেন

মধ্য খটখটিয়া, রংপুর

 

 

► গত এক দশক কালের কণ্ঠ গণমানুষের নানা কল্যাণমুখী কর্মকাণ্ড ও সচিত্র প্রতিবেদন তুলে ধরে পাঠকের মন জয় করেছে। সমসাময়িক বিষয়ের ওপর তথ্যবহুল খবর পড়তে প্রতিদিন সকালে লাখ লাখ পাঠকের সঙ্গে আমিও চোখ রাখি। পত্রিকাটি ভালো লাগার আরো একটি কারণ, প্রাসঙ্গিক বিষয়ে পূর্ণ পাতার মতামত প্রদান জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া, এতে সাধারণ মানুষ স্বাধীনভাবে তার মতামত জানাতে পারে এবং সম্পাদক গ্রহণযোগ্য মতামত প্রকাশ করেন। মতামত প্রকাশের সুযোগ রাখার জন্য সম্পাদকসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এ ধারা যেন অব্যাহত থাকে, সে প্রত্যাশা করছি।

এম আনিসুর রহমান

শেখেরখিল, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম।

 

► কালের কণ্ঠ’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সবাইকে আমাদের শুভেচ্ছা। পত্রিকাটি অনেক দিন থেকেই পড়ি, ভালো লাগে। আমাদের প্রত্যাশা, সামনের দিকেও সত্ভাবেই এগিয়ে যাবে।

ফোরকান আক্তার চৌধুরী

আরজতপাড়া, তেজগাঁও, ঢাকা।

 

► দৈনিক কালের কণ্ঠ’র কাছে মানুষের প্রত্যাশা অনেকের চেয়ে আমার বেশি। তাই সত্য ও ন্যায়ের পথে নেতৃত্ব দেওয়ার মানসিকতাকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও দেশকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে জোরালো ও সাহসী ভূমিকা অব্যাহত রাখতে হবে। একটি সংবাদ কতটা বস্তুনিষ্ঠ, তা যাচাইয়ের একটি মাধ্যম হলো কালের কণ্ঠ। পত্রিকাটিতে নির্ভুল তথ্য থাকে। এ ছাড়া বিভিন্ন শ্রেণি-পেশা ও নানা মতের মানুষের মতামত প্রদানের ক্ষেত্রে অনুসরণযোগ্য। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নেওয়া, তরুণদের স্বপ্ন দেখিয়ে তাদের এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে এর অবস্থান আরো জোরালো করা উচিত।

মো. সাকিব আল হাসান রুবেল

রৌমারী, কুড়িগ্রাম।

 

► কালের কণ্ঠ শুরু থেকে মুক্তিযুদ্ধ ও সম্প্রীতির চেতনার বাংলাদেশের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সময়ের অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে মানবিকভাবে কাজ করে যাবে পত্রিকাটি—প্রত্যাশা করি। নতুন বছরে সাংবাদিকরা নতুন ওয়েজ বোর্ড পাবে, সেটাও দাবি জানাই।

কামরুজ্জামান

কলাবাগান, ঝিনাইদহ।

 

► প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে যে পত্রিকাটি হাতে নিই, বারে বারে চোখ বুলাই, মনোযোগসহকারে পড়ি—সেটি হলো কালের কণ্ঠ। পত্রিকাটি সত্য খবর প্রকাশ করে আমাদের মন জয় করেছে। এখনো করে যাচ্ছে। ভবিষ্যতেও তা-ই করবে আশা রাখি। কালের কণ্ঠ অতিরঞ্জিত খবর প্রকাশ করে না। যা সত্য তারই বহিঃপ্রকাশ কালের কণ্ঠ। আমাদের প্রত্যাশা, কালের কণ্ঠ স্বাধীনতার পক্ষের মুখপাত্র হয়ে সরকারের ভুলত্রুটি তুলে ধরে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিতে অসাধারণ ভূমিকা রাখবে। জয় হোক কালের কণ্ঠ’র। আশা রাখি যা সত্য, যা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যায়, যা মানুষকে সুখে রাখে—তার পক্ষেই কথা বলবে কালের কণ্ঠ। সত্য খবরের মুখপত্র হয়ে থাকুক কালের কণ্ঠ।

লিয়াকত হোসেন খোকন

রূপনগর, ঢাকা।

 

► বাংলাদেশে প্রতিটি জাতীয় দৈনিকের প্রথম সংখ্যা সংগ্রহ করা আমার নেশা। কাকডাকা ভোরে দৈনিক পত্রিকা একনজর না দেখলে ভালো লাগে না। শুরু থেকেই কালের কণ্ঠ’র গেটআপ-মেকআপ ও ছাপা মন কেড়েছে। কালের কণ্ঠ টিকে থাকুক বহুকাল এবং পাঠকবান্ধব পত্রিকা হোক প্রতিদিন—প্রত্যাশা করি।

আবিদ করিম মুন্না

বাংলা একাডেমি, ঢাকা।

 

► ১০ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করেছিল শিকড়সন্ধানী একটি পত্রিকা, যার নাম কালের কণ্ঠ। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে জনগণের হৃদয়ে প্রবেশ করেছে পত্রিকাটি। সংবাদ প্রকাশে সাহসী গণমাধ্যম হিসেবে সারা দেশে সুপরিচিত। শহর-নগর ছাড়িয়ে কালের কণ্ঠ পৌঁছে গেছে গ্রামগঞ্জে, প্রত্যন্ত অঞ্চলে। জনগণের আস্থা অর্জন করেছে আপসহীন এ পত্রিকা। এতে প্রকাশিত সংবাদে পূর্ণ আস্থা রাখা যায়। এ পত্রিকা দেশ ও দশের কথা বলে, মাটি ও মানুষের কথা বলে। পত্রিকাটি গত ১০ জানুয়ারি দশম বর্ষে পদার্পণ করেছে। সম্পাদকসহ কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সাংবাদিকদের জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। পত্রিকাটি আপন গতিতে চলুক, সত্য ও ন্যায়ের প্রতীক হয়ে সেরা গণমাধ্যম হয়ে উঠুক।

মো. আজিনুর রহমান লিমন

মিয়াপাড়া, ডিমলা, নীলফামারী।

 

► ইদানীং দেখা যাচ্ছে, অনেক পত্রিকাই নিজের মতো খবর পরিবেশন না করে বিশেষ দল ও মতের সমর্থন প্রচার করে যাচ্ছে। কালের কণ্ঠ এই চক্রে সীমাবদ্ধ হবে না—এই আশা করি।

সহিদুল মোড়ল

দাকোপ, খুলনা।

 

► আমি একজন হকার। ১৯৯৯ সাল থেকে পত্রিকা বিক্রি করি। কালের কণ্ঠ’র জন্ম থেকেই পত্রিকা ফেরি করছি। জগন্নাথপুর বাজারে আমার দোকান আছে। আমাদের হকারদের জন্য তেমন সুযোগ নেই। এ বিষয়ে দৃষ্টি দিলে কৃতজ্ঞ থাকব।

নীতেশ বৈদ্য

জগন্নাথপুর, সুনামগঞ্জ।

 

► দশ বছরে পা রাখল বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা কালের কণ্ঠ। এ পরিবারের প্রত্যেককে শুভেচ্ছা। কালের কণ্ঠ’র সঙ্গে আমার পরিচয় পাঁচ-সাত বছর আগে। তখন থেকে কালের কণ্ঠ জড়িয়ে আছে আমাদের পরিবারের সঙ্গে। পত্রিকাটি পাঠকের চাহিদা বুঝবে, এটাই আশা। তাহলে সর্বসেরা হবে। প্রিন্ট সংস্করণে পত্রিকাটির কাগজ আরো উন্নত হলে আরো সুন্দর লাগত।

আমার কাছে পত্রিকার আকর্ষণীয় বিষয় হলো, শনিবারের মতামত পাতা। এ পাতা গণতন্ত্রচর্চার ক্ষেত্র। কালের কণ্ঠ এদিক থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন। আলাদা করে একটি ম্যাগাজিন করে আরো বেশি মানুষের মতামত নেওয়া সম্ভব। তরুণদের ম্যাগাজিন ‘দলছুট’ খুবই আকর্ষণীয় ও আলোচিত। এ ম্যাগাজিন আমাকে লিখতে উদ্বুদ্ধ করে। অনেক তরুণ অল্প সময়ে জড়িয়ে পড়েছে দলছুট-এ। দলছুট ম্যাগাজিনে শিশু-কিশোরদের জন্য আরো কয়েকটি শিক্ষণীয় পাতা থাকা উচিত। পত্রিকার মেকআপের দিকে লক্ষ রাখা উচিত। অনলাইন সংস্করণের ফন্টগুলো মনোযোগ নষ্ট করে। অনেকে বলেন, পত্রিকাটির দলীয়করণ হয়েছে। আশা রাখি এ বিষয়ে কালের কণ্ঠ মনোযোগ দেবে। কালের কণ্ঠ থেকে সব সময় বিশেষ কিছু আশা করি—সব সময় সংবাদ প্রকাশে ভিন্নতা থাকুক। কালের কণ্ঠ’র সঙ্গে আছি, ছিলাম এবং থাকব।

মুহসিন মুন্সী

দৌলতপুর, খুলনা।

 

► কালের কণ্ঠ এমন পত্রিকা, স্বাধীনতার পক্ষে এবং মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে। আমি নিয়মিত পত্রিকাটি পাঠ করি। আমরা চাই, প্রতি সপ্তাহে যেন একটি লেখা থাকে মাদক বিষয়ে।

নাদিম খান

ভাইজোরা, পিরোজপুর।

 

► দশম বছরে পদার্পণ উপলক্ষে কালের কণ্ঠে যুক্ত সবাইকে লালগোলাপ শুভেচ্ছা। পত্রিকার পাঠক বাড়ছে প্রতিদিন এর বস্তুনিষ্ঠ সংবাদের কারণে। মাদক ও গণতন্ত্র বিষয়ে পত্রিকাটি সুনামের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে মেহনতি মানুষের কথা বলবে, তাদের পাশে দাঁড়াবে—এই আশা করি।

কুমারেশ চন্দ্র

বাস শ্রমিক, ঝিনাইদহ।

 

► সুদীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে প্রিয় পত্রিকা কালের কণ্ঠ দশম বছরে পদার্পণ করেছে। পত্রিকাটিতে পেয়ে থাকি প্রতি মুহূর্তের খবর। নানা রকম ঘটনার কথা, খেলাধুলাসহ বিভিন্ন বিষয়ের তথ্য, দিকনির্দেশনামূলক পরামর্শ ও সুন্দর সুন্দর আয়োজন থাকায় কালের কণ্ঠ পড়তে উৎসাহিত হই। আমরা পাঠকরা যখন খুব অসহায়, কাছের মানুষটিও পাশে নেই, ঠিক তখন ভরসা জোগায় একটি নিরপেক্ষ পত্রিকা—কালের কণ্ঠ। আশা করি পাঠকদের ভালো লাগা, চাওয়া-পাওয়া ও প্রত্যাশা অনুযায়ী পত্রিকাটিকে টিকিয়ে রাখা হবে। প্রিয় পত্রিকাটির আরো সাফল্য কামনা করি।

মো. তারিফ হাসান

কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী।

 

► কালের কণ্ঠ’র ফিচার বিভাগে নতুন কিছু বিষয় যুক্ত করা জরুরি বলে মনে করি। নতুন লাইফস্টাইল ও সময় নিয়ে বিভাগ এবং কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স অর্ধ পৃষ্ঠার বদলে এক পৃষ্ঠা করুন। আন্তর্জাতিক খেলার কলেবর বাড়াতে হবে। মনোরোগ বিষয়ে এবং আইনবিদের পরামর্শ নিয়ে নতুন বিভাগ খোলা হলে আমরা উপকৃত হব।

ইরফান রহমান

মগবাজার, ঢাকা।

►  ১০ বছরে পত্রিকাটি সব শ্রেণি, ব্যবসা বা পেশার লোকদের লেখনীতে আস্থার ঠিকানা হিসেবে পরিণত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনায় দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে কালের কণ্ঠকে কাজ করতে হবে। এতে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, খেলাধুলা পাতা, ধর্মীয় পাতা, শিশুদের পাতা, গ্রামবাংলার কথা নিয়মিত প্রকাশ করায় মুগ্ধ হয়েছি। নতুন বছরে নতুন আবহে আর্থ-বাণিজ্যিক, রাজনৈতিক অতিথি লেখকদের প্রাণজাগানিয়া অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়ায় ধন্যবাদ। দশম বছরে শিক্ষার কারিগর শিক্ষকদের সম্মানিত করার মধ্য দিয়ে সামাজিক দায়বদ্ধতার কাজ করেছে। এভাবে কাজ অব্যাহত রাখা, অন্যান্য পেশার লোকদেরও সম্মানিত করার উদ্যোগ নেওয়ার প্রয়োজন। আগামী দিনে মানুষের কথা, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে তার ঐতিহ্যকে ধরে রাখবে এবং সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে—প্রত্যাশা রইল। কালের কণ্ঠ’র যাত্রা শুভ হোক।

মোহা. আব্দুল হান্নান

মানপুর, লাখাই, হবিগঞ্জ।

 

► অনেক চড়াই-উতরাই ও বাধাবিপত্তি পেরিয়ে কালের কণ্ঠ দশম বছরে এসে পাঠক মহলে পেয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। বেড়েছে প্রচারসংখ্যা। আগামী দিনগুলোতেও কমবে না এর বিপুল জনপ্রিয়তা ও পাঠকপ্রিয়তা। পত্রিকাটির বড় সাফল্য—মুক্তিযোদ্ধা চেতনার লালন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো, মাদকমুক্ত সমাজের কথা অকপটে প্রকাশ, দেশের উন্নয়ন ও সাফল্যের চিত্র ধারাবাহিকভাবে পত্রস্থ করাসহ আরো গুরুত্বপূর্ণ নানা বিষয়ে সাফল্য-ব্যর্থতার কথা তুলে ধরা হয়েছে। নতুন বছরে শব্দভেদ ও সুডোকু বিভাগে পাঠকদের অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করুন এবং পুরস্কার হিসেবে প্রাইজবন্ড কিংবা মোবাইল রিচার্জ দেওয়া যেতে পারে। পড়ালেখা বিভাগে ‘শব্দ শিখি’ নামে একটি নতুন পর্ব চালু করা হোক। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্ব নিয়ে সাধারণ জ্ঞানের কুইজ প্রতিযোগিতা শুরু করুন। সপ্তাহে একজন পাঠকের সাক্ষাৎকার প্রকাশ করুন।

মো. ইলিয়াছ হোসেন

মধ্য খটখটিয়া, রংপুর।



মন্তব্য