kalerkantho


জনগণই সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করবে

১০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



এরই মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছে। দেশবাসী আশা করে, একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সব পক্ষ দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার সুরক্ষায় এবং আসন্ন নির্বাচনকে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য করে তুলতে দেশের রাজনৈতিক সংকট সমাধানে রাজনীতিকরা বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে সংলাপে বসেছেন। সংলাপে আমাদের জাতীয় নেতারা দায়িত্বশীলতা, আন্তরিকতা ও দেশপ্রেমের পরিচয় দিয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক পরিস্থিতি সুস্থ ধারায় ফিরতে শুরু করেছে। সাধারণ মানুষের মনে আশার সঞ্চার হয়েছে। আমরা আশা করি, দেশের গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থাকে দৃঢ় ও শক্তিশালী করতে এ সংলাপ সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলবে। সুশাসন প্রতিষ্ঠায় রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও সমঝোতা যথেষ্ট সহায়ক হবে। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে রাজনীতিকরা দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখবেন বলেই আমরা আশা করি। রাজনীতিতে মতভেদ থাকবে, প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকবে, বিরোধিতা থাকবে; কিন্তু প্রতিহিংসা বা সংঘাত মেনে নেওয়া যায় না। আমাদের রাজনীতির মূল ভিত্তি হতে হবে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অর্থাৎ গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতা। স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তি, মৌলবাদ, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার সঙ্গে আমাদের রাজনীতির কোনো সম্পর্ক থাকতে পারে না।

প্রতিটি জাতীয় নির্বাচনই দেশ ও জাতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অতীতের যেকোনো নির্বাচনের চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ একদিকে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, অন্যদিকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ও জঙ্গিবাদের তৎপরতা এবং রোহিঙ্গা সমস্যাসহ দেশি-বিদেশি চক্রান্ত মোকাবেলা করে বাংলাদেশকে এক কঠিন সময় অতিক্রম করতে হচ্ছে। ১৫-২০ বছর আগের বাংলাদেশ আর বর্তমান বাংলাদেশের মধ্যে অনেক পার্থক্য। বাংলাদেশ বর্তমান বিশ্বে এক সম্ভাবনাময় দেশ হিসেবে পরিচিত। বাংলাদেশের এই সম্মানজনক অবস্থান ধরে রাখতে হলে অবশ্যই দূরদর্শী, বিচক্ষণ, দৃঢ়চেতা, সাহসী ও রাজনীতিতে অভিজ্ঞ নেতৃত্বের প্রয়োজন। সুতরাং সাম্প্রতিক সংলাপের সাফল্য-ব্যর্থতা, জয়-পরাজয় ইত্যাদির হিসাব না করে দেশ, জাতি ও গণতন্ত্রের মঙ্গলের জন্য সব দলের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা উচিত। সব দলের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করার দায়িত্ব ইসি ও নির্বাচনকালীন সরকারের। একই সঙ্গে দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা ও ভোটারদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে জনগণের সমর্থন ছাড়া অন্য কোনো উপায়ে নির্বাচনে জয়ী হওয়া বা ক্ষমতায় যাওয়ার সুযোগ নেই। মানুষ নির্বাচন চায়, যোগ্য প্রার্থী ও দলকে ভোট দিতে চায়।

বিপ্লব বিশ্বাস

ফরিদপুর।



মন্তব্য