kalerkantho


কেউ উসকানি দিচ্ছে

২৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সম্মানিত উপাচার্যকে লাঞ্ছনা করা কোনো সাধারণ শিক্ষার্থীর পরিকল্পনায় আসা সম্ভব নয়। তাদের উসকে দেওয়ার পেছনে কোনো একটি মহলের হাত ছিল—এটা পরিষ্কার। নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থীদের ব্যানারে উপাচার্যের কার্যালয় ঘেরাও করে বামপন্থী বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের কর্মীরা। ছাত্রদল ও শিবিরের কর্মীরাও হামলায় অংশ নিয়েছে। তিনটি ফটকের তালা ভেঙে তারা উপাচার্যের দরজার সামনে করিডরে অবস্থান নেয়। অধ্যাপক আখতারুজ্জামান পেছনের ফটক দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেও আন্দোলনকারীরা তাঁকে আটকে দেয়। পরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে গিয়ে অবরুদ্ধ উপাচার্যকে উদ্ধার করে। ছাত্র যে সংগঠনেরই হোক, তাদের মনে রাখা উচিত ছিল, তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) নিজের কার্যালয়ে অবরুদ্ধ হওয়ার পর সেখানে তাঁকে উদ্ধার করতে যাওয়া কি শুধু ছাত্রলীগের দায়িত্ব ছিল? সাধারণ ছাত্রদের কি কোনো দায়িত্ব নেই? এ ধরনের ঘটনায় একজন সুস্থমনস্ক ছাত্রের হাত-পা গুটিয়ে বসে থাকার কথা নয়। এ ঘটনায় দোষী সবার শাস্তি হওয়া উচিত, ছাত্রলীগের কোনো দোষ থাকলে তাদেরও শাস্তি দিতে হবে। কিন্তু যারা ভিসি কার্যালয়ের ফটক ভেঙেছে, তাদেরও চরম শাস্তি হওয়া উচিত।

 

তৌহিদুল ইসলাম রবিন

লাকসাম, কুমিল্লা।


মন্তব্য