kalerkantho


বিচিত্রা

আলিশান গাড়ি-বাড়ি

৮ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০



আলিশান গাড়ি-বাড়ি

এই একবিংশ শতকে এসে ক্যাম্পিংয়ের মজার সঙ্গে আয়েশ যুক্ত করে চালু হয়েছে নতুন এক ধরনের ঘোরাঘুরির চল। তাতে ক্যাম্পিংয়ের মজাও থাকে, আবার বিলাসী হোটেলের গ্ল্যামারও বাদ যায় না।

গ্ল্যামার আর ক্যাম্পিং মিলিয়ে এর নাম দেওয়া হয়েছে গ্ল্যাম্পিং। তাতে বনেবাদাড়ে গিয়ে তাঁবু খাটিয়ে থাকা হয় ঠিকই, কিন্তু সেই অস্থায়ী আবাসেই থাকে রাজ্যের আরাম-আয়েশের ব্যবস্থা। এই গ্ল্যাম্পিংয়ের কথা মাথায় রেখেই নতুন এক মোটরহোম বাজারে এনেছে ভারিও মোবিল নামের এক জার্মান কম্পানি। ক্যাম্পিংয়ের জন্য মোটরহোম বা গাড়ি-বাড়ি বানাতে এমনিতেই জার্মান এই কম্পানির বেশ নামডাক আছে। তবে তারা নতুন যে গাড়ি-বাড়ির মডেলটা বের করেছে, সেটি রীতিমতো আলিশান। নাম ‘ভারিও সিগনেচার ১২০০’।
এই গাড়ি-বাড়িটা এতটাই বড় যে তাতে আস্ত একটা গাড়িও পার্ক করে রাখা যায়! লম্বায় প্রায় ১২ মিটার। ভেতরে সব মিলিয়ে ছয়জনের থাকার ব্যবস্থা। সঙ্গে গাড়ি পার্কিংয়ের ওপর আরেকটা অতিরিক্ত বিছানা। মাস্টার বেডরুমে শুধু ডাবল বেডই নয়, আছে বেডসাইড ল্যাম্প আর স্কাইলাইটও। বিলাসবহুল হোটেলের স্যুইটে যেমন থাকে, তেমনি একটা লাউঞ্জও আছে। মার্কিন ওয়ালনাট কাঠ দিয়ে বানানো লাউঞ্জটা উজ্জ্বল সাদা চামড়ায় মোড়ানো। আছে বিখ্যাত বোস কম্পানির হোম এন্টারটেইনমেন্ট সিস্টেম, সঙ্গে বিশেষ লাইটিংয়ের ব্যবস্থা। গাড়ির ভেতরে এমনকি রান্না করার প্রায় সব ব্যবস্থাই আছে। শুধু তা-ই নয়, গাড়ি-বাড়ির বাথরুমটাও বেশ বড়সড়। বাড়ির অংশ বড় করতে গিয়ে গাড়িটা ছোট করতে হয়েছে, এমনটাও ঘটেনি। সামনে ড্রাইভারের যে কেবিন, তাতে ড্রাইভারের আসনের পেছনেও এক সারি চেয়ার আছে। পরিবারের সবাই মিলে ওখানে বসে যাত্রার মজাও চাখতে পারে পুরোদমে।
এই মজা চাখার জন্য খরচটা অবশ্য নিতান্ত কম নয়। একেকটা গাড়ি-বাড়ির দাম হাঁকা হয়েছে সাত লাখ ১০ হাজার ইউরো। যে কিনবে, চাইলে গাড়ি-বাড়িটা তার চাহিদা মাফিক কাস্টমাইজ করে দেওয়ার ব্যবস্থাও আছে। অবশ্য দামটাও চাহিদা অনুযায়ী বেড়ে যাবে। যেমন ডুসেলডর্ফ ক্যারাভ্যান সেলুনের কাস্টমাইজ করা সিগনেচার ১২০০ গাড়ি-বাড়িটার দাম পড়েছে তিন লাখ ইউরো বেশি।
-নাবীল আল জাহান


মন্তব্য