kalerkantho


সত্যিই

পাঁচ মাইলের গুহানদী

সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



পাঁচ মাইলের গুহানদী

বছর কয়েক আগেই প্রাকৃতিক সপ্তাশ্চর্যের তালিকায় নিজের নাম লিখিয়েছে নদীটি। বলছিলাম ফিলিপাইনের পালাওয়ান দ্বীপের পুয়ের্তো প্রিন্সেসা সাবটেরেনিয়ান ন্যাশনাল পার্কে অবস্থিত পুয়ের্তো প্রিন্সেসা সাবটেরেনিয়ান রিভার বা পাতাল নদীর কথা।

১৮৯৮ সালে আমেরিকান জীববিজ্ঞানী ডিন সি. ওয়রস্টার রহস্যময় এই নদী ও এটির সাগরে গিয়ে পড়ার কথা উল্লেখ করেন। স্ট্যাকেটাইট আর স্ট্যালেগমাইটে ভর্তি গুহার ভেতর দিয়ে বয়ে যাওয়া পাঁচ মাইল দীর্ঘ নদীটি এরপর একটু একটু করে পরিচিত হয়ে উঠেছে পৃথিবীর কাছে। একটি লেক থেকে শুরু হয়ে গুহার মধ্যে চুনাপাথরের দেয়ালে ধাক্কা খেয়ে উঁচু-নিচু পথ পেরিয়ে শেষাবধি গিয়ে ওটা পড়েছে দক্ষিণ চীন সাগরের বুকে।

১৯৭১ সাল থেকে ন্যাশনাল পার্কে রূপান্তরিত করা হয় নদী আর গুহাটিসহ আশপাশের এলাকাকে। ১৯৯৯ সালে ইউনেসকোর বিশ্ব ঐতিহ্য ঘোষণা করা হয় একে। আর সর্বশেষ ২০১২ সালে নাম উঠে প্রাকৃতিক সপ্তাশ্চর্যের তালিকায়।

পাতাল নদীতে পৌঁছানো অবশ্য খুব একটা সহজ কাজ নয়। পুয়ের্তো প্রিন্সেসা সাবটেরেনিয়ান ন্যাশনাল পার্কে যেতে হলে প্রথমে আপনাকে বিমানে করে যেতে হবে পালাওয়ান দ্বীপের পুয়ের্তো প্রিন্সেসা শহরে। সেখান থেকে সড়কপথে সেবাং শহরে।

সেবাং থেকে পালতোলা বড় নৌকায় চড়তে হবে আপনাকে। নৌকা আপনাকে মাত্র ৩০ মিনিটে পৌঁছে দেবে পার্কের ভেতর। ন্যাশনাল পার্কের সৈকত আর পাহাড়ের চূড়ার দেখা পাবেন এখানেই। সৈকত ধরে পাঁচ মিনিট হাঁটলেই ছোট নৌকা বা ক্যানু পেয়ে যাবেন। ওটাতে চড়লে খানিক বাদেই পৌঁছে যাবেন নদীটিতে। তারপর ওই নদীপথেই চলে যাবেন রহস্যময় গুহার জগতে। গুহার ভেতরের অন্ধকারে কিছু দেখা না গেলেও গাইডের কাছে থাকা আলো আর তার দেওয়া তথ্য সহজেই চারপাশ বুঝতে সাহায্য করবে।

চুনাপাথর, সবুজ রঙের পানি আর ওপর থেকে ঝুলতে থাকা বাদুড়—অ্যাডভেঞ্চারের জন্য আর কী চাই! গুহার ভেতরের ছবি তুলতে না পারলেও বাইরে পানির মাঝ থেকে মাথা তুলে থাকা গাছে উঠে এর ডালে বসে খুব সহজেই নানা রকম ছবি তুলতে পারবেন।

২০১০ সালে প্রথমবারের মতো পরিবেশ বিশেষজ্ঞের একটি দল গুহাটির দ্বিতীয় তলা খুঁজে পায়। এই তলাটিতে সন্ধান মেলে ঝরনা, চুনাপাথর, গম্বুজ আর নদীসহ আরো কিছু পথের। গোটা প্রিন্সেসা সাবটেরিয়ান ন্যাশনাল পার্কে আছে প্রায় ৮০০ প্রজাতির গাছ, ১৬৫ ধরনের পাখি, ১৯ প্রজাতির সরীসৃপ, ৩০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী ও ৯ জাতের বাদুড়।


মন্তব্য