kalerkantho


বিছানা গরম করেন তিনি

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বিছানা গরম করেন তিনি

রুম হিটার দিয়ে শীতল ঘর উষ্ণ করার কথা শুনেছেন। কিন্তু মানুষ দিয়ে ঠাণ্ডা বিছানা উষ্ণ করার কথা কস্মিনকালেও শোনেননি নিশ্চয়ই! রীতিমতো অবিশ্বাস্য এই সেবাটিই দিচ্ছেন রাশিয়ান নারী ভিক্টোরিয়া ইভাচয়োভা।

তবে ‘বিছানা গরম করা’ বলতে যে ইঙ্গিতটি সাধারণত বোঝানো হয়, তার সঙ্গে ভিক্টোরিয়ার কোনো সম্পর্ক নেই। আক্ষরিক অর্থেই তিনি পৃথিবীর প্রথম প্রফেশনাল বেড ওয়ার্মার।  

তবে এমনি এমনি এই সেবা দিচ্ছেন না ২১ বছর বয়সী ভিক্টোরিয়া। ক্লায়েন্টকে প্রতি রাতের জন্য গুনতে হবে ৬৫ ইউরো আর প্রতি মাসে এক হাজার ৩৫০ ইউরো! এরই মধ্যে এই অদ্ভুত সেবা পেতে রীতিমতো লাইন পড়ে গেছে!

ভিক্টোরিয়ার সেবা দেওয়ার পদ্ধতিটাও বেশ মজার। রাতে যে সময়ে ক্লায়েন্টরা ঘুমাতে যাবেন, তার ঠিক এক ঘণ্টা আগে তিনি সেই বিছানায় শুয়ে বিছানা গরম করতে থাকেন! এ সময় অবশ্য নিজের নিরাপত্তার জন্য বাইরে সতর্ক প্রহরী রাখেন। কোনো ক্লায়েট নির্দিষ্ট সেবা ছাড়া বাড়তি কিছু দাবি করলেই সুইচ চেপে দেবেন। সঙ্গে সঙ্গে প্রহরী হাজির হয়ে যাবে। তবে এ সময়টায় ক্লায়েন্ট চাইলে পাশে বসে গল্প করতে পারবেন। ভিক্টোরিয়া বেশ ভালো শ্রোতা।

অনেকে তাঁর সঙ্গে কথা বলে স্বস্তি বোধ করেন। একজন তো বলেই ফেলেছেন, ‘সত্যি তুমি ম্যাজিক ভিকা! (ভিক্টোরিয়া)। আজ ঘুম থেকে জেগে মনে হলো, আমি আরো কিছুদিন বাঁচতে চাই। ’

ভিক্টোরিয়া জানান, তাঁর ক্লায়েন্টদের বেশির ভাগই পুরুষ। এই অভিনব পেশার আইডিয়া পান রাশিয়ান লেখক আনাতলি মারিনজফের একটি চরিত্র সের্গেই ইয়েসেনিনের কাছ থেকে। সের্গেইয়ের কাছে প্রতিদিন এক নারী টাইপিস্ট আসতেন। তিনি সের্গেই ঘুমোতে যাওয়ার আগে ১৫ মিনিট বিছানায় শুয়ে তাঁর বিছানা উষ্ণ করে রাখতেন!

সেবাটা অদ্ভুতুড়ে হলেও এর চমকপ্রদ বাড়তি চাহিদার কথা চিন্তা করে ভিক্টোরিয়া এখন একটা টিমই বানাতে চলেছেন, যেখানে তিনি ছাড়াও বেশ কয়েকজন নারীকর্মী কাজ করবেন। এখন পর্যন্ত ভিক্টোরিয়ার মক্কেলরা সবাই পুরুষ এবং সিঙ্গেল। তবে মহিলাদের জন্যও বিছানা গরম করতে আপত্তি নেই তাঁর, জানিয়েছেন ভিক্টোরিয়া।

 

তাহমিনা সানি


মন্তব্য