kalerkantho


সাড়া জাগানো ভুল

এক মিনিটের বিশ্বসুন্দরী

ভুলের মাত্রা মাঝেমধ্যে এতই বেড়ে যায় যে ঘটনা উঠে যায় ইতিহাসের পাতায়। এমন কিছু মহাভুল নিয়েই এই আয়োজন। লিখেছেন ধ্রুব নীল

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



এক মিনিটের বিশ্বসুন্দরী

মুকুট খুলে নেওয়া হচ্ছে মিস কলম্বিয়ার মাথা থেকে

২০১৫ সালের ঘটনাটা এখনো অনেকে ভোলেননি। টিভিতে লাইভ সম্প্রচারের সময় মিস ইউনিভার্সের নাম ভুল বলেছিলেন উপস্থাপক। আর তাই মিস কলম্বিয়ার মাথার মুকুট খুলে নিয়ে পরিয়ে দিতে হয় মিস ফিলিপাইনের মাথায়। সুন্দরী প্রতিযোগিতার ইতিহাসে ভুলটি রয়ে যাবে মোটা অক্ষরে।

ঠিক একই ধরনের আরেকটি ভুল হয়েছিল ১৯৮৭ সালে। সেটা যুক্তরাজ্যের স্থানীয় পর্যায়ে হলেও ঘটনার বিচারে ওটাও ছিল বিব্রতকর ও দুঃখজনক। কার্ডিফের সুন্দরী শ্যারন গার্ডিনারকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় মঞ্চে। যথারীতি তাঁর চোখে-মুখে উচ্ছ্বাস। হাত নাড়তে থাকেন দর্শকদের উদ্দেশে। কিন্তু এ আনন্দ থাকে মাত্র এক মিনিট। ভুল বুঝতে পেরে তড়িঘড়ি করে ফের ঘোষণা দেন মিস ওয়ার্ল্ড চেয়ারম্যান এরিক মুরলে।

জানান, বিচারকদের পয়েন্ট গুনতে গড়বড় হয়েছে। আসল বিজয়ী টাইডফিল থেকে আসা নিকোলা ডেভিস। হতভম্ব শ্যারন বুঝতে পারেন, এ যাত্রায় আর তাঁর মিস ইউকে মুকুট পরা হচ্ছে না। অধরাই থেকে যায় মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগটা। মাত্রার বিচারে এ ঘটনাকে একটু বেশিই দুঃখজনক বলা যায়, কারণ শ্যারনের বয়স যখন ১৫ তখন থেকেই তাঁর ধ্যানজ্ঞান হলো বিশ্বসুন্দরী কিংবা নিদেনপক্ষে মিস ইউকে হওয়া। কিন্তু পরিণতিটা এমন হৃদয়বিদারক হবে ভাবেননি। আর তা এতটাই যে পরে আর এ ধরনের প্রতিযোগিতায় নামই লেখাননি শ্যারন।

 

 


মন্তব্য