kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অদ্ভুত

পাহাড় খোঁজার যন্ত্র

সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



পাহাড় খোঁজার যন্ত্র

ধরুন, অনেক আগ্রহ নিয়ে পাহাড়ে ঘুরতে গেছেন। অথচ অনেক দূর হাঁটার পর বুঝতে পারলেন, যে পাহাড়টায় চড়েছেন এতক্ষণ, সেটি আসলে আপনার কাঙ্ক্ষিত পাহাড় নয় কিংবা যেদিকে এতটা কষ্ট করে হাঁটলেন আপনি, সে দিকে কোনো পাহাড়ই নেই! একদম ভুল দিকে চলে এসেছেন।

পাহাড়ে পাহাড়ে হারিয়ে ফেলেছেন পথ। এমন সময় কী করবেন? কাউকে ডেকে রাস্তা জিজ্ঞেস করে নেবেন—এমন সুযোগও তো নেই। তবে?

পাহাড়ে চড়ার এ সমস্যার কথা মাথায় রেখেই সুইজারল্যান্ডে তৈরি করা হয়েছে মজার এক পাহাড় অন্বেষণযন্ত্র, যার ভেতর দিয়ে তাকিয়ে খুব সহজেই কাঙ্ক্ষিত পাহাড়টির দেখা পেয়ে যাবেন। ভাবছেন, কী করে এমনটা সম্ভব? কেমন করে তৈরি করা হয়েছে এই যন্ত্র? হাস্যকর হলেও সত্যি, এর উপাদান সাধারণ কিছু পাইপ ছাড়া আর কিছুই নয়। একটি মোটা পাইপ প্রথমে বসানো হয়েছে একটি উঁচু স্থানে, যেটি কিনা খুব সহজেই চোখে পড়বে মানুষের। তারপর সেই মোটা পাইপের গায়ে লাগানো হয়েছে বিভিন্ন আকৃতির ছোট-বড় চিকন পাইপ। পাইপগুলোর গায়ে একেকটি পাহাড়ের নাম লেখা আছে। আপনি যে পাহাড়ে চড়তে চান, সেটির নাম লেখা পাইপে চোখ রাখুন। ব্যস, খুব সহজেই খুঁজে পাবেন কাঙ্ক্ষিত পাহাড় আর সে দিকে যাওয়ার রাস্তা। আসলে নির্দিষ্ট পাহাড়ের নাম লেখা পাইপটি এভাবেই বসানো হয়েছে যে ওটা দিয়ে তাকালে কেবল সেই পাহাড়টিই খুঁজে পাওয়া যাবে।

নিশ্চয়ই এ মজার যন্ত্রের কথা শুনে এর নির্মাতার নামও জানতে ইচ্ছা করছে? অদ্ভুত হলেও সত্যি, সুইজারল্যান্ডের এই পাহাড়-নির্দেশক যন্ত্রটির নির্মাতাকে আজ পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া যায়নি। অনেকে কাছের গ্রামের মানুষদেরই এর নির্মাতা বলে মনে করেন। হয়তো পর্যটক নয়, বরং প্রতিদিনের প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখেই গ্রামবাসীদের মধ্য থেকে এক বা একাধিক ব্যক্তি জিনিসটি তৈরি করেছেন। তবে নির্মাতার খোঁজ না থাকলেও যন্ত্রটি পাহাড় খোঁজার কাজে যে শতভাগ সফল, তাতে সন্দেহ নেই।


মন্তব্য