kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রেকর্ড বুক

দানবীয় বাইসাইকেল

তাহমিনা সানি

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



দানবীয় বাইসাইকেল

৪৯ বছর বয়সী জার্মানির নাগরিক ফ্রাঙ্ক দোজে সাইকেলপ্রেমী। আর এটাই তাঁকে শেষ পর্যন্ত বিশ্বরেকর্ডই এনে দিয়েছে।

তিনি হয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে ভারী বাইসাইকেলের মালিক।

ফ্রাঙ্ক অতিকায় এই বাইসাইকেলের বড় চাকা দুটি জুড়েছেন সার ছড়ানোর বড় যন্ত্র থেকে। গোটা সাইকেলটি তৈরি করতে তাঁর খরচ পড়েছে চার হাজার ৭০০ ডলার। অর্থাৎ প্রায় পৌনে পাঁচ লাখ টাকা। নিঃসন্দেহে একটি বাইসাইকেলের জন্য খরচটা একটু বেশিই। কিন্তু তাঁর স্ত্রী অ্যাস্ট্রিডের এ নিয়ে মোটেই দুঃখ নেই। ‘বাইকটা দেখতে অসাধারণ হয়েছে। বিশেষ করে ও যে শেষ পর্যন্ত সত্যি এটা বানাতে পেরেছে, তাতেই আমি অনেক খুশি। ’ বলেন তিনি। অবশ্য তাঁর এই খুশির পেছনে মূল কারণ সাইকেলটির বিশ্বরেকর্ড গড়া। গত সেপ্টেম্বরের ৩ তারিখে বাইকটি অর্জন করেছে বিশ্বের সবচেয়ে ভারী দুই চাকার যানের বিশ্বখেতাব! এটির ওজন ১.০৮ টন! যা আগের রেকর্ড করা সাইকেলটির চেয়ে ১২০ কেজি বেশি। জেফ পিটার নামের এক বেলজিয়ামবাসীর বাইসাইকেলের ওই খেতাব ছিল। বাইসাইকেলটির ওজন ছিল ৮৬০ কেজি।

অবশ্য ওজন বেশি বলে ফ্রাঙ্কের যে এটি চালাতে অসুবিধা হচ্ছে তা কিন্তু নয়। ১.৫৩ মিটার ব্যাসের বিশাল চাকা সত্ত্বেও এই বাইসাইকেল মসৃণ গতিতে চলে। ফ্রাঙ্ক ডোজ প্রায় পাঁচ হাজার দর্শকের সামনে চালিয়ে তা প্রমাণ করেছেন। এর গতি ঘণ্টায় পাঁচ কিলোমিটার।

দানবীয় বাইসাইকেল বানানোর ভূত ফ্রাঙ্কের মাথায় চেপেছিল ওয়াকেন ওপেন এয়ার ফেস্টিভালের মেটাল বাইসাইকেল রাইডের সময়। তাঁর এক বন্ধু সেটির মসৃণতা ও গতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তাই তখনই ফ্রাঙ্ক সিদ্ধান্ত নেন, নিজেই বিশাল মেটাল বাইসাইকেল বানাবেন, যা চলবে একেবারে মসৃণ গতিতে। ব্যস, এভাবেই তিনি বানিয়ে ফেললেন বিশ্বের সবচেয়ে বড় বাইসাইকেল।


মন্তব্য