kalerkantho


পরিবারের সবার প্রাণ বাঁচিয়েছে পোষা কুকুর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ আগস্ট, ২০১৮ ২০:২৩



পরিবারের সবার প্রাণ বাঁচিয়েছে পোষা কুকুর

কুকুরের প্রভূভক্তির নজির নতুন নয়। রাত জেগে প্রভূর বাড়ি পাহারা দেওয়া থেকে শুরু করে তাকে সহযোগিতাও করে পোষা কুকুর। তবে ভারতের কেরালায় প্রভূর পুরো পরিবারকে প্রাণে বাঁচিয়েছে পোষা কুকুর।

জানা গেছে, কেরালার ভয়ঙ্কর বন্যা পরিস্থিতিতে ইতোমধ্যেই ৩৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন এবং ৩৫ হাজারের বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন ত্রাণ শিবিরে।

এই পরিস্থিতিতেই মৃত্যুর হাত থেকে এক পরিবারকে রক্ষা করেছে তাদের পোষ্য ওই কুকুর। ভয়ানক ভূমিধসে তাদের বাড়ি ধ্বংস হয়ে পড়ার ঠিক আগের মুহূর্তে কুকুরটি বাঁচিয়ে দেয় ওই পরিবারের সদস্যদের।  

গত বৃহস্পতিবার, ইদুক্কি জেলার কাঞ্জিকুঝি গ্রামে তাদের বাড়িতেই ঘুমিয়ে ছিলেন মোহানান পি এবং তার পরিবার।  রাত প্রায় ৩টা নাগাদ পোষা কুকুরের ডাকে ঘুম ভেঙে যায় তাদের। প্রথমে কুকুরের ডাককে পাত্তা না দিয়ে আবারো ঘুমিয়ে পড়ার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু যত সময় পার হয় চিৎকার বাড়তে থাকে কুকুরের।

মোহানান জানান, অল্পের জন্য ভয়ঙ্কর পরিণতির হাত থেকে বেঁচেছি। আমরা বুঝতে পারছিলাম কিছু একটা ঘটতে চলেছে। সেটা বোঝার জন্যই বাইরে দেখতে গিয়েছিলাম, অবস্থা বুঝে সঙ্গে সঙ্গে বেরিয়ে আসি বাইরে।

যখন মোহানান এবং তার পরিবার কুকুরটিকে খুঁজতে বাড়ির বাইরে আসেন, তখনই খেয়াল করেন ধস নামছে তীব্র গতিতে। আসন্ন বিপর্যয়ের ঠিক আগ মুহূর্তেই নিরাপদে বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে আসেন তারা। ভূমিধসে তাদের বাড়িটি ধ্বংস হয়ে যায় সঙ্গে সঙ্গে।

দুর্যোগে কেরালার বহু পরিবারই হারিয়েছে তাদের মাথা গোঁজার ঠিকানা, পরিবার ও প্রিয় মানুষ। নিজের বহু দুঃখ কষ্টে অন্যদের সাহায্য করার জন্যও এগিয়ে এসেছেন সকলে।

একই বাড়িতে মোহানানের উপরতলার ঘরে বসবাস করতেন এক বয়স্ক দম্পতি, ভূমিধস প্রাণ কেড়ে নিয়েছে তাদেরও। সরকারি কর্মকর্তারা ভারী বৃষ্টি আর বন্যার সতর্কবার্তা জারি করার পরেই ওই পরিবার পেরিয়ারের তীরে নিজের বাড়ি ছেড়ে এই ভাড়াবাড়িতে এসে ওঠেন।



মন্তব্য