kalerkantho


ধর্ষণে বাধা দেওয়ায় তরুণীর মাথায় ইটের আঘাত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ আগস্ট, ২০১৮ ২০:৫৫



ধর্ষণে বাধা দেওয়ায় তরুণীর মাথায় ইটের আঘাত

নির্জন জায়গায় নিয়ে যাওয়ার পর তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিল পরিচিত এক যুবক। বাধা দেওয়ায় ওই তরুণীর মাথা ইট দিয়ে থেঁতলে হত্যা করার চেষ্টা করে সেই যুবক।

ঘটনার পরে রিপন শিকদার নামে ওই যুবক পালানোর চেষ্টা করলে এলাকার কয়েকজন দেখতে পান। তাদের সন্দেহ হওয়ায় ওই যুবককে ধরে ফেলেন। ভারতের হাঁসখালির কাছে রামদুলালপুরের পরিত্যক্ত একিট বাড়ি থেকে ওই যুবককে পালাতে দেখে সেখানে ঢুকে ওই ব্যক্তিরা দেখেন, রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে এক তরুণী। পাশে রক্তমাখা ইট।

ওই যুবককে মারধরের পর স্থানীয়রাই পুলিশে খবর দেন।  রাতে ওই তরুণীর মা হাঁসখালি থানায় রিপনের বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ করেন।

ওই তরুণীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভারতের শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে কলকাতার নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তরিত করা হয়।

চিকিৎসকরা জানান, ৭২ ঘণ্টা পার না হওয়া পর্যন্ত মেয়েটিকে বিপদ মুক্ত বলা যাবে না।

এদিকে পুলিশ বলছে, অভিযুক্ত রিপনের বাড়ি হাঁসখালির বংশীনগরে। ২০১১ সালেও ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছিল সে। পরিবারের দাবি, ওই তরুণী মানসিক ভাবে কিছুটা অসুস্থ। তার সঙ্গে বেশ কিছু দিন ধরে তরুণীর সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল বলে পুলিশকে জানিয়েছে রিপন।

রিপনের দাবি, ওই ফাঁকা বাড়িতে গল্প করার জন্য সে তরুণীকে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে চুমু খেতে গেলে তরুণী বাধা দেয়। তাতে তার মাথা এতটাই ‘গরম’ হয়ে যায় যে, একটা ইট তুলে সে তরুণীর মাথায় আঘাত করে ফেলে। বিপদ বুঝতে পেরে পালাতে যায়। তরুণীর মাথায় গভীর চোট লেগেছে। চোয়াল ভেঙে গেছে। আঘাতের চিহ্ন রয়েছে তরুণীর বুক ও যৌনাঙ্গেও।



মন্তব্য