kalerkantho


চলে গেলেন 'জনযুদ্ধের গণযোদ্ধা' কামরুল হাসান ভূঁইয়া

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ আগস্ট, ২০১৮ ১৭:০৩



চলে গেলেন 'জনযুদ্ধের গণযোদ্ধা' কামরুল হাসান ভূঁইয়া

একাত্তরের গেরিলা যোদ্ধা, বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত মুক্তিযুদ্ধ গবেষক ও লেখক কামরুল হাসান ভুঁইয়া আর নেই। আজ দুপুরে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)।

মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর লিবারেশন ওয়ার স্টাডিজের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান ভূঁইয়া এ বছর মুক্তিযুদ্ধ সাহিত্যে অবদানের জন্য বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন।

১৯৫২ সালের ২৪ জুলাই কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন কামরুল হাসান ভূঁইয়া। পড়াশোনা করেছেন যশোর জিলা স্কুল ও ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে। ১৯৮৩ সালে চীনা ভাষায় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন বেইজিং ভাষা ও সংস্কৃতি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার বছরে অর্থাৎ ১৯৭১ সালের ১৩ এপ্রিল মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন তিনি। যুদ্ধ করেন ২ নম্বর সেক্টরে।

১৯৭৪ সালের ৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন কামরুল হাসান ভূঁইয়া। ১৯৭৫ সালের ১১ জানুয়ারি সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট হিসেবে চতুর্থ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে কমিশন লাভ করেন। ১৯৯৬ সালের ১২ জুলাই মেজর পদমর্যাদায় থাকা অবস্থায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী থেকে স্বেচ্ছায় অবসর নেন। মৃত্যুর আগে পর্যন্ত তিনি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর লিবারেশন ওয়ার স্টাডিজের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

তাঁর প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক বইয়ের সংখ্যা ২৩টি, সামরিক ইতিহাসের ওপর লেখা ১টি এবং শিশুতোষ গ্রন্থ ৩টি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক বই হলো; জনযুদ্ধের গণযোদ্ধা, বিজয়ী হয়ে ফিরব নইলে ফিরবই না, ২ নম্বর সেক্টর এবং কে ফোর্স কমান্ডার-খালেদের কথা (সম্পাদিত), একাত্তরের কন্যা, জায়া, জননীরা, পতাকার প্রতি প্রণোদনা, মুক্তিযুদ্ধে শিশু-কিশোরদের অবদান ও একাত্তরের দিনপঞ্জি অন্যতম।  



মন্তব্য