kalerkantho


ভারতে কারাগারেও দাদাগিরি, বাধ্য হয়ে ২০ জনকে বদলি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ জুন, ২০১৮ ২২:১৭



ভারতে কারাগারেও দাদাগিরি, বাধ্য হয়ে ২০ জনকে বদলি!

কারারক্ষীদের ওপর আক্রমণের জেরে মালদহ জেলা সংশোধনাগার থেকে বহরমপুরে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে কয়েকজন বন্দিকে। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত আরো কয়েকজন বন্দিকে বহরমপুর ও বালুরঘাট সংশোধনাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত শনিবার মালদহ জেলে বিচারাধীন বন্দিদের একাংশের হাতে আক্রান্ত হন তিন কারারক্ষী। তাদেরকে পানির পাইপ, গাছের ডাল এবং ইট দিয়ে মারধর করা হয়। আহত কারারক্ষীদের ভর্তি করানো হয়েছিল মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

ওই ঘটনায় একাংশ বন্দিদের মদদ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল কালিয়াচকের নওদা যৌধপুরের ত্রাস বকুলের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে সংশোধনাগারে অভিযোগ নতুন নয়। খুন, তোলাবাজি, অপহরণ, ছিনতাইয়ের মতো প্রায় ৩০টি মামলা রয়েছে বকুলের বিরুদ্ধে।

সংশোধনাগারেও তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, বন্দিদের মারধর করা, হুমকি দেওয়ার মতো অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি, এক বিচারাধীন বন্দি বকুলের ঘনিষ্ঠ দুই বন্দির বিরুদ্ধে বিচারকের কাছে অভিযোগ করেছিল।

সেই ঘটনায় বিচারক জেল সুপারের কাছে রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছিলেন। এছাড়া, বছরখানেক আগেও তার বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তুলেছিল অন্য দুই বন্দি।   

তাদের অভিযোগ, বকুলের ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে থাকত অন্য বন্দিরা। সংশোধনাগারের এক আধিকারিক রবিবার বলেন, বকুল শেখকে মালদহ থেকে অন্যত্র সরানোর আগেই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কারণ, বকুল জেলের মধ্যে চোরা সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করে রেখেছিল।

তবে কারারক্ষীদের মারধরের ঘটনার পর তড়িঘড়ি তাকে অন্য জেলে পাঠানোর সিন্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানান তিনি। সোমবার সকালে সংশোধনাগারে পরিদর্শনে আসেন ভারপ্রাপ্ত ডিআইজি নবীন সাহা।

তিনি মালদহ কারা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকও করেন। তার পরই বকুল-সহ ২০ জন বন্দিকে মালদহ থেকে বহরমপুর ও বালুরঘাট জেলে সরানো হয়।

জেল সূত্রে জানা গেছে, বকুল, রাজু শেখ, হাকিম শেখ, এস্তাজুল শেখ, ইমরান খান-সহ ১০ জনকে পাঠানো হয়েছে বহরমপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে। আর কানাইয়া যাদব ওরফে হুক্কা, ভোল্ট-সহ ১০ জনকে বালুরঘাটে পাঠানো হয়েছে।

সংশোধনাগারের একজন কর্মকর্তা বলেন, কয়েকজন বন্দির জন্য সংশোধনাগারের পরিবেশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। এক বিচারাধীন বন্দির আত্মীয় বলেন, খাবার, ঠান্ডায় কম্বল কেড়ে নিত জেলের কিছু গুন্ডা।



মন্তব্য