kalerkantho


দেওবন্দের ফতোয়া: শিয়াদের দাওয়াতে যাবেন না সুন্নিরা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ জুন, ২০১৮ ২১:৩২



দেওবন্দের ফতোয়া: শিয়াদের দাওয়াতে যাবেন না সুন্নিরা!

দেওবন্দ দারুল উলুম মাদ্রাসা -ফাইল ফটো

শিয়াদের কোনো দাওয়াতে সুন্নি মুসলমানরা যাবেন না, হোক সেটা ইফতার কিংবা বিয়ে। এই ফতোয়া জারি করেছে ভারতের ঐতিহ্যবাহী দেওবন্দ দারুল উলুম মাদ্রাসা। 

এ প্রসঙ্গে মাদ্রাসার ফতোয়া বিভাগের মুফতি জয়নুল ইসলাম কাসমি, মুফতি ফখরুল ইসলাম ও মুফতি ওয়াকার আলী বলেন- শিয়াদের দাওয়াত এড়িয়ে চলা উচিৎ সুন্নিদের। 

পবিত্র রমজান মাসে জারি করা এই ফতোয়ার ফলে মুসলিমদের বিভিন্ন ইফতার মাহফিলে শিয়া-সুন্নি নির্বিশেষে লোকজনের অংশগ্রহণে প্রতিবন্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় হিন্দি পত্রিকা জনসত্তা.কম জানায়, কিছুদিন আগে এক যুবক দেওবন্দ মাদ্রাসায় লিখিত প্রশ্ন করে জানতে চায়, রমজান মাসে শিয়াদের আয়োজিত রোজকার ইফতার পার্টিতে সুন্নিদের অংশ নেওয়া জায়েজ কি না?

এই প্রশ্নের জবাবেই দারুল উলুমের উল্লেখিত তিন মুফতি এই ফতোয়া জারি করলেন। এর ফলে ইসলামি শরিয়তের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে এমনিতেই চলমান শিয়া-সুন্নি বিরোধ নয়া মাত্রা পাবে বলে আশংকা করছেন পর্যবেক্ষক মহল।

প্রসঙ্গত, উত্তর প্রদেশের সহারানপুর জেলায় অবস্থিত ইসলামি শিক্ষাকেন্দ্র দারুল উলুম দেওবন্দ থেকে জারি করা যে কোনো ফতোয়া উপমহাদেশীয় ইসলামি সমাজে সুদুরপ্রসারী প্রভাব রাখে। 

চলতি বছরেই দেওবন্দ থেকে ফতোয়া দেওয়া হয় মুসলিম নারীদের টাইট ফিটিং বোরখা না পরতে। জনসত্তা.কম জানায়, দেওবন্দের ওই ফতোয়ায় বলা হয়েছিল- নারীরা যখন বাইরে বের হয় তখন শয়তান তাদের দিকে নজর দেয়। তাই বিনা কারণে মুসলিম নারীদের ঘর থেকে বাইরে বের হওয়া অনুচিত। আর যদি বাইরে বের হতেই হয় সেক্ষেত্রে তাদের ঢিলাঢালা পোশাকে বের হতে হবে। খোলামেলা বা আঁটসাট ধরনের পোশাক কিংবা বোরখা গায়ে যেন বাইরে না বের হয় তারা। এরও আগে দেওয়া এক ফতোয়ায় মুসলিম নারীদের ভ্রূ চাঁছা বা প্লাগ করা নাজায়েজ বলেছিল দেওবন্দ।    



মন্তব্য