kalerkantho


১৭ বিলিয়ন ডলারের গুপ্তধন নিয়ে পানির তলে 'সান জোস'!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ মে, ২০১৮ ১৭:০৮



১৭ বিলিয়ন ডলারের গুপ্তধন নিয়ে পানির তলে 'সান জোস'!

সান জোসের কামান দেখেছেন বিজ্ঞানীরা

সত্যিকার অর্থেই বিশাল এক গুপ্তধনের সন্ধান মিলবে হয়তো। সাগরের তলায় আশ্রয় নেয়া সেই প্রাচীন সময়ের এক জাহাজের ধ্বংসাবশেষ আবিষ্কৃত হয়েছে সম্প্রতি। আর সেই জাহাজটি সম্ভবত বহন করছিল ১৭ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ! 

কলোম্বিয়ার উপকূলের কাছে যে জাহাজের অবশিষ্টাংশ মিলেছে, বিজ্ঞানীরা বলছেন ওটা 'হলি গ্রেইল' নামে পরিচিত ছিল। উডস হোল ওসেনোগ্রাফিক ইনস্টিটিউটের তথ্যমতে, এই জাহাজে বহন করা হচ্ছিল ১৭ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ। 

ইতিহাস বলছে, ৩১০ বছরের পুরনো এই স্প্যানিশ গ্যালিয়ন ঘরাণার জাহাজটির নাম সান জোস। তখন চলছিল ওয়ার অব স্প্যানিশ সাকসেশন। ১৭০৮ সালে ব্রিটিশ জাহাজের সঙ্গে যুদ্ধ করতে গিয়ে এটা ডুবে যায় ক্যারিবিয়ান সাগরে। ওটা মূল্যবান স্বর্ণ, রৌপ্য আর রত্নপাথর বহন করছিল। এগুলো এখন পানির ২ হাজার ফুট গভীরে পড়ে রয়েছে। এটা কলোম্বিয়ার কার্তাজেনা উপকূলের কোনো এক জায়গায় রয়েছে। 

আসলে উডস হোল ওসেনোগ্রাফিক ইনস্টিটিউটের একটি সাবমেরিন ড্রোন রেমুস ৬০০০ এর প্রকৌশলীরা এই জাহাজটি খুঁজে পান। এই সাবমেরিনের মালিক বিলিয়নিয়ার রে দালিও। তিনি দালিও ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে এটা পরিচালনা করেন। 

আসলে ২০১৫ সালেই এই জাহাজটি আবিষ্কার করেন বিজ্ঞানীরা। কিন্তু তখন থেকেই এর খবর গোপন করা হয়। জাহাজটি কামানে খোদাই করে ডলফিন আঁকানো ছিল। এতে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, এই জাহাজটি সান জোস। 

উডস হোলের এক প্রকৌশলী জেফ কায়েলি জানান, আমি এই জাহাজটি দেখে একটানা ১০ মিনিট স্তম্ভিত হয়েছিলাম। তারপর আমি হেসেছি। তখন মনে হচ্ছিল, এই পৃথিবীতে ওই মুহূর্তে আমিও একমাত্র মানুষ যে কিনা এই সান জোসের খবর জানে। 
সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার 


মন্তব্য