kalerkantho


সায়েন্স ফিকশন উৎসব সমাপ্ত

'রিবো'তে মাতল শিশুরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ মে, ২০১৮ ২২:১২



'রিবো'তে মাতল শিশুরা

‘তোমার নাম কি? একটি ধাতব ভারী কণ্ঠের উত্তর, রিবো। তোমার দেশের নাম কি? আবারও একই কণ্ঠে উত্তর এলো, বাংলাদেশ। আমার সঙ্গে হ্যান্ডশ্যাক করবে? হ্যা, নাইস টু মিট ইউ। এভাবেই শিশুদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছিল বুদ্ধিমান রিবো। রিবো আসলে একটি মানব আকৃতির রোবট। কিন্তু কৃত্তিম বৃদ্ধিমত্তা সম্পন্ন। অনেক শিশুই তাকে স্বরবর্ণগুলো শোনাতে বললে রিবো তাও বলে শোনাচ্ছিল। এভাবেই কাটলো সায়েন্স ফিকশন ফেস্টিভালের সমাপনি দিনের উত্সব। আর এ উত্সবে মেতে উঠেছিল ঢাকা ও ঢাকার আশেপাশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা শিশুরা। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর শাহবাগে পাবলিক লাইব্রেরী প্রাঙ্গণে মিষ্টার নুডুলস এর সহযোগিতায় এবং বাংলাদেশ সায়েন্স ফিকশন সোসাইটির আয়োজনে চলছিল এই ফেষ্টিভাল। 

দিনভর বিজ্ঞান আনন্দ, সিমুলেশন গেমস, টাইপিং মাষ্টার, হেলিকপ্টার ও কার রেসিং, সায়েন্সফিকশন নির্ভর সিনেমাসহ নানা আনন্দ আয়োজনে। এর পাশাপাশি এলিয়েনের ছবি আঁকা, উন্মুক্ত কুইজ প্রতিযোগিতাসহ নানা খেলায় মেতে উঠে শিশুরা। উন্মুক্ত কুইজ প্রতিযোগিতার সময় বিভিন্ন সায়েন্স ফিকশন গল্পের লেখক ও প্রকাশকরা উপস্থিত ছিলেন। 

গাজিপুর থেকে ফেষ্টিভালে এসেছিলেন আরিফা সুলতানা। তিনি বলেন, আমার ছেলে-মেয়েদের সায়েন্সের বিষয়ে অনেক ঝোক। তাই ওদেরকে নিয়ে এসেছি। সারাদিন ধরেই ওরা বেশ আনন্দ করছে। 

সিমুলেশন গেমস এ বড় স্ক্রিনের সামনে দাড়িয়ে দুজন প্রতিযোগী মিলে কুস্তি খেলছিলেন। নিজেদের মত করে শুন্যে কিল ঘুষি লাথি মারছিলেন। লাগছিল গিয়ে প্রতিযোগীর গায়ে। এই খেলা শেষ করে ছোট্ট শিশু সাজিত আরাফাত বলেন, 'রিবোর সাথে কথা বলা শেষ করে এই গেম খেললাম। এরপর গাড়ি চালাব।'

অনুষ্ঠানে সায়েন্স ফিকশন লেখক দীপু মাহমুদ বলেন, 'আমরা শিশুদের এমন একটা পরিবেশ দিতে চাই, যাতে তাদের আগ্রহ তৈরি হয়। এই আগ্রহই তাদেরকে নতুন কিছু করতে উৎসাহিত করবে।'

বিকেলে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। এই সায়েন্স ফিকশন লেখক মেলা প্রাঙ্গনে আসার সঙ্গে সঙ্গে শিশুরা তার সঙ্গে ছবি তুলতে থাকে। তিনি ছবি আকার বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার তুলে দেন।

এ সময় বিভিন্ন সায়েন্স ফিকশন লেখক ও প্রকাশকরা উপস্থিত ছিলেন। 



মন্তব্য