kalerkantho


'আজ কোনও খবর নেই' - এমনই জানিয়েছিল বিবিসি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ১৬:৫৫



'আজ কোনও খবর নেই' - এমনই জানিয়েছিল বিবিসি!

‘ইনফরমেশন থেকে মিসইনফরমেশন যুগে’- বর্তমানে ভুয়া খবরের ছড়াছড়ির মধ্যেই এই ধরনের জোকস্ বাজারে ভাইরাল। 

খবরের প্রতিযোগিতার বাজারে সত্য-খবর বাছাই করা পাঠকদের জন্য কার্যত উদ্বেগের বিষয়। অনেকেই মনে করেন যে, এমন অনেক দিন আসে, যেদিন কোনও খবর থাকে না। অর্থাৎ, ব্রেকিং নিউজ নেই। সেই দিনগুলিতেও মান ও মর্যাদা বজায় রেখে সংবাদমাধ্যমের উচিত ভুয়া খবর বর্জন করা। যা অধিকাংশ দায়িত্বশীল সংবাদমাধ্যম করে থাকেই। তবে একই পরিস্থিতিতে নজিরবিহীন কাজ করেছিল বিবিসি রেডিও। যা আজও নজির হয়ে রয়েছে। 

১৮ এপ্রিল, ১৯৩০। গুড ফ্রাইডে-র আগের রাত। পরের দিন খবরের কাগজ বন্ধ থাকবে। তাই আগের রেডিওই খবর পরিবেশনের একমাত্র ভরসা ছিল। সে কারণেই ব্রিটেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্তার সাক্ষাৎকার তৈরি রাখতে চেয়েছিল বিবিসি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু, শেষ মুহূর্তে তা দিতে রাজি হননি ব্রিটেনের প্রশাসনিক কর্তারা। অর্থাৎ গুড ফ্রাইডে-র দিন বিবিসির কাছে শ্রোতাদের জন্য কোনও খবর তৈরি নেই।

পুরোনো খবরের টেপ চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বিবিসির কর্তারা। সঙ্গে সরকারি কিছু ঘোষণাও চালানো হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু, ১৮ এপ্রিল, ১৯৩০-এ ওই টেপ চালানো যায়নি। বিবিসি রেডিও চালানো শ্রোতাদের শুনতে হয়, 'আজ কোনও খবর নেই'। এবং এরপরই শুরু হয়ে যায় পিয়ানোর সুর।

যদিও ঠিক কী কারণে ওই টেপ চালানো হয়নি। তা আজও রহস্য। কিন্তু, বিবিসি রেডিও-র দৌলতেই ‘খবরহীন’ সন্ধ্যার সাক্ষী ছিলেন বহু। 



মন্তব্য