kalerkantho


চিঠি দিয়ে এসে বাঁশ কেটে মই বানিয়ে বাড়িতে ঢুকে ডাকাতি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২০:৫৬



চিঠি দিয়ে এসে বাঁশ কেটে মই বানিয়ে বাড়িতে ঢুকে ডাকাতি!

দুই মাস আগেই বাড়িতে এসেছিল হুমকির চিঠি। তার পরে পুলিশের নজরদারিও ছিল। সেই নজরদারিতে একটু ঢিলে পড়তেই বাড়িতে হানা দেয় ডাকাত দল। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, একসঙ্গে হানা দিয়েছে ৩০ জনের বেশি ডাকাত।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মালদহের ইংরেজবাজার থানা এলাকায়। জানা গেছে, বোমাবাজি করতে করতে বাড়ির পাশের বাঁশবাগান থেকে বাঁশ কেটে মই বানিয়ে সাবেক এক সেনাকর্মীর বাড়িতে ঢোকে ডাকাতরা।

নগদ তিন লাখ টাকা, বেশ কয়েক ভরি সোনার গয়না নিয়ে পালিয়ে যায় তারা। যদিও, এত কিছু ঘটে গেলেও দুই কিলোমিটার দূরের পুলিশফাঁড়িতে অবস্থানরত পুলিশকর্মীরা কিছুই টের পাননি।

ওই এলাকার বাসিন্দা মিহির চৌধুরীর বাড়িতে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। সাবেক সেনাকর্মী তিনি। ডাকাতির সময় তিনি ছাড়াও বাড়িতে তার স্ত্রী, ছেলে এবং ছেলের বউ ছিলেন।

আরো পড়ুন : সৎ মাকে মুক্তি দিতে পঙ্গু যুবকের আত্মহত্যা!

মঙ্গলবার মালদহ সফরে আসার কথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তার আগে এই দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনায় জেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠছে।

গ্রামবাসী বলছে, বিয়ের মৌসুম হওয়ায় প্রথমে বোমার আওয়াজকে তারা আতশবাজির শব্দ ভেবে ভুল করেছিলেন। পরে যখন তারা বিষয়টি বুঝতে পারেন, ততক্ষণে ডাকাতরা গোটা গ্রামের দখল নিয়ে নিয়েছে।

যদিও, কয়েকজন গ্রামবাসী ফোনেই পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেন। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ডাকাত দলের সঙ্গে পুলিশের গোপন  সম্পর্ক রয়েছে।

মিহিরসহ আক্রান্ত পরিবারের চারজনকেই মালদহ মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। বিষয়টি নিয়ে মিহির মুখ না খুললেও ডাকাতরা নগদ তিন লক্ষ টাকা এবং প্রায় আট ভরি সোনার গহনা নিয়ে পালিয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে।



মন্তব্য