kalerkantho


মৃতের শুক্রাণু থেকে জমজ শিশুর জন্ম!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১১:১৫



মৃতের শুক্রাণু থেকে জমজ শিশুর জন্ম!

জমজ দুই ভাই বোন প্রথমেশ আর পৃষা

এক দম্পতির মৃত ছেলের শুক্রাণু থেকেই জন্ম নিয়েছে যমজ শিশু। ওই দম্পতির এক আত্মীয়ার গর্ভে সেই শুক্রাণু থেকে তৈরি ভ্রূণ প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে জন্ম হয়েছে একটি পুত্র ও কন্যা সন্তানের। ভারতের পুনে শহরে এ ঘটনা  ঘটেছে। 

জানা গেছে, পুনে শহরের বাসিন্দা প্রথমেশ পাটিল (২৭) ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২০১৬ সালে মারা যান। 

প্রথমেশের মা রাজশ্রী পাটিল জার্মানিতে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে ছেলেকে ভারতে ফিরিয়ে আনেন। রাজশ্রী পাটিল জানান, চিকিৎসা শুরুর আগেই জার্মানির একটি স্পার্ম ব্যাঙ্কে তার ছেলের শুক্রাণু জমিয়ে রাখা ছিল। 

আরো পড়ুন: এবার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্লেবয় মডেলের!

রজশ্রী পাটিল বলেন, 'হঠাৎই একদিন মনে হলো, ছেলের শুক্রাণু তো জমিয়ে রাখা আছে জার্মানিতে। সেটা দিয়েই তো কৃত্রিম প্রজননের সাহায্যে ফিরিয়ে আনতে পারি প্রথমেশকে।'

জার্মানিতে ক্যান্সারের চিকিৎসা শুরু করার আগেই ডাক্তাররা পরিবারের অনুমতি নিয়ে প্রথমেশের শুক্রাণু জমিয়ে রেখেছিলেন। আর তা রাখা ছিল 'সিমেন ক্রায়োপ্রিজারভেশন' পদ্ধতিতে।

রাজশ্রী পাটিল জানান, সেই শুক্রাণু দেশে এনে কৃত্রিমভাবে ভ্রূণ প্রজনন ঘটিয়ে নিজের গর্ভে প্রতিস্থাপন করাতে চেয়েছিলেন তিনি। চিকিৎসকরা তাতে সম্মতি দেন নি। তবে, তার এক সম্পর্কিত বোন এগিয়ে আসেন।

আরো পড়ুন: বাইক নিয়ে ভয়ংকর স্টান্ট দেখানো কে এই তরুণী? (ভিডিওসহ)

প্রথমেশের জমিয়ে রাখা শুক্রাণু থেকে ভ্রূণ তৈরি করে সেই আত্মীয়ার গর্ভে প্রতিস্থাপন করা হয়। সেই আত্মীয়ার গর্ভ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি জন্ম নিয়েছে যমজ শিশু। 

এই প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত ছিলেন ডা. সুপ্রিয়া পুরাণিক। তিনি বলেন, 'প্রথমেশের মার গর্ভে ওই ভ্রূণ প্রতিস্থাপন সম্ভব হত না। তার যে আত্মীয় গর্ভধারণ করেছেন, তিনি প্রথমবারের চেষ্টাতেই যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন।'

ডা. সুপ্রিয়া পুরাণিক বলেন, 'ভারতের চিকিৎসা বিজ্ঞানের ইতিহাসে এরকম কোনো ঘটনা জানা নেই, যেখানে এক পুত্রহারা মা তার সন্তানের শুক্রাণু ব্যবহার করিয়ে ছেলের পুনর্জন্ম ঘটাতে চেয়েছেন।'

রাজশ্রী পাটিল বলেন, 'এরা তো আমার ছেলে আর মেয়েই। তাই পুত্র শিশুটির নাম রেখেছি প্রথমেশ, আর কন্যা শিশুটির নাম পৃষা।

 তথ্যসূত্র: বিবিসি



মন্তব্য