kalerkantho


ডয়চে ভেলের প্রতিবেদন

পাহাড়ের ঢালে এক অন্যরকম বাড়ি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৯:১৩



পাহাড়ের ঢালে এক অন্যরকম বাড়ি

পোল্যান্ডের কার্পেথিয়ান পর্বতমালার ঢালে বাড়ি তৈরি করেছেন স্থপতি রবার্ট কনিয়াচনি। বাড়ির নকশাতেও রয়েছে ভিন্নতা। ফলে ২০১৭ সালের সবচেয়ে সেরা ব্যক্তিগত বাড়ি নির্বাচিত হয়েছে এটি।

বাড়িটিতে ছাদ দুটি। একটি উপরে, অন্যটি নীচের দিকে। বাইরের দিকটা বেশ সাধারণ। স্থপতি কনিয়াচনির এই বাড়িকে পোল্যান্ডের অন্যতম আধুনিক বাড়ির স্বীকৃতি দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

খুব অল্প আসবাব আর হালকা রং শান্তির এক আবহ সৃষ্টি করেছে। বড় জানালা বাড়ির একটি অন্যতম উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য। রুচিশীল এই ফায়ারপ্লেস বাড়িকে গরম আর আরামদায়ক রাখে। রবার্ট কনিয়াচনির কাছে নকশা বড় বিষয় নয়। তিনি বলেন, ‘‘ঘরের ভেতরটা শান্ত আর সাধারণ হওয়া উচিত বলে আমি মনে করি। এই বাড়ির দুই পাশের দৃশ্য বেশ সুন্দর। প্রতিদিনই তা পাল্টায়। আজ যেমন কুয়াশা। মনে হচ্ছে, যেন স্বর্গে আছি।''

একটি রিমোট কন্ট্রোল দিয়ে বাড়ির প্রধান দরজা খোলে। পরে নৌকায় ওঠার মতো জেটিতে করে ভেতরে ঢোকা যায়। মনে হয়, যেন পাহাড়ের ঢালে একটি নৌকা কিছুক্ষণের জন্য থেমেছে। বাড়ির একপাশের দেয়াল প্রয়োজনে খোলা যায়। এভাবে প্রকৃতির আলো ঘরের ভেতরে ঢোকানো যায়। কনিয়াচনি বলেন, ‘‘আমি যদি এখানে একটা বাগান কিংবা টেরাস বানাতাম, তাহলে তার চারদিকে বেড়া দিতাম। তা দেখতে অদ্ভুত লাগত, অপ্রয়োজনীয় মনে হতো। আমি এমনভাবে বাড়িটি বানিয়েছি, যেন মনে হয়, পুরো পাহাড়টাই আমার। বাড়িটা যেন পাহাড়ের মধ্যে ভাসছে। এখানে কোনো সীমানা নেই।''

এই বাড়ির আয়তন প্রায় ১৪০ বর্গমিটার, এবং এটি এমনভাবে বানানো হয়েছে যেন পাহাড় থেকে আসা পানি এর নীচ দিয়ে চলে যেতে পারে।

বাড়ির নীচে কোনো ফাউন্ডেশন নেই। তিনটি পিলারের উপর দাঁড়িয়ে আছে এটি। নীচটা এমনভাবে বানানো যে, পিলারগুলো দেখা যায় না। কনিয়াচনি এখানে বসবাস শুরুর পর ‘আর্ক' শব্দের তাঁর কাছে যেন অন্য আরেক মানে হয়ে উঠেছে।

কনিয়াচনি জানান, ‘‘প্রাণীরা এই বাড়িকে ভয় পায় না। গ্রীষ্মে তারা এর আশেপাশেই থাকে ও ঘুমায়। আর শীতের সময় তারা বনে থাকে।''

বাড়িটি নির্মাণের সময় পরিবেশের কথাও মাথায় রাখা হয়েছিল। যেমন, বাথরুমে এমন এক ফোম ব্যবহার করেছেন কনিয়াচনি, যা দেখতে বিশেষ কিছুর মতো দেখায়। তাছাড়া এই দেয়াল অনেক তাপমাত্রা ধরে রাখতে পারে। একেবারে সাধারণ নকশা, তবে কার্যকরী।

আর্কিটেকচার ও ডিজাইন ম্যাগাজিন ‘ওয়ালপেপার' কনিয়াচনির বাড়িকে ২০১৭ সালের সবচেয়ে সেরা ব্যক্তিগত বাড়ি নির্বাচন করেছে। অবশ্য পোল্যান্ডের এই স্থপতির পুরস্কার জেতার কোনো লক্ষ্য ছিল না। তিনি কেবল শহরের কোলাহলমুক্ত এক পরিবেশে থাকতে চেয়েছিলেন। এখানে তিনি সেটা পেয়েছেন।


মন্তব্য